২৫ সেপ্টেম্বর ওস্তাদ নিয়াজ মোহাম্মদ চৌধুরী স্পেশাল শো

প্রকাশিত: 2:40 AM, September 9, 2014

২৫ সেপ্টেম্বর ওস্তাদ নিয়াজ মোহাম্মদ চৌধুরী স্পেশাল শো

image_1738_217521অভি মঈনুদ্দীন ::
টেলিভিশন পর্দায় ওস্তাদ নিয়াজ মোহাম্মদ চৌধুরীকে সঙ্গীত পরিবেশন করতে খুব কমই দেখা যায়। তবে যারা আন্তরিকভাবে চেষ্টা করেন তাকে টিভির পর্দায় আনতে তাদেরকে সময় দেবার চেষ্টা করেন উপমহাদেশের প্রখ্যাত এই সঙ্গীতশিল্পী। খন্দকার ইসমাইল ঠিক তেমনি একজন যিনি যথেষ্ট আন্তরিকতা নিয়ে ওস্তাদ নিয়াজ মোহাম্মদ চৌধুরীর কাছে গিয়েছেন টিভি দর্শকের জন্য গান পরিবেশন করার ব্যবস্থা করতে। এর আগে দু’বার খন্দকার ইসমাইলের ডাকে সাড়া দিলেও এবারের অনুষ্ঠানটি ছিলো একেবারেই ভিন্ন। তাই একটু সময় নিয়েই ওস্তাদ নিয়াজ মোহাম্মদ চৌধুরী খন্দকার ইসমাইলের ‘স্মাইল শো’র ব্যানারে ‘ওস্তাদ নিয়াজ মোহাম্মদ চৌধুরী স্পেশাল শো’তে সঙ্গীত পরিবেশন করেছেন। গত রবিবার মাগরিবের নামাজের পরপরই রাজধানীর বাংলা একাডেমির ‘আবদুল করিম সাহিত্য বিশারদ’ মিলনায়তনে এই স্পেশাল শো’র দৃশ্যধারণ কাজ সম্পন্ন হয়। খন্দকার ইসমাইলের গ্রন্থনা, পরিকল্পনা ও উপস্থাপনায় বিশেষ এই স্পেশাল শো’টি ব্যতিক্রম এই কারণেই যে অনুষ্ঠানে নিয়াজ মোহাম্মদ চৌধুরী উপস্থাপকের সঙ্গে প্রতিটি গানের রাগ নিয়ে কথা বলার পাশাপাশি স্মৃতিচারণের পর গান গেয়েছেন যা এর আগে অন্য কোন অনুষ্ঠানে দেখা যায়নি। স্পেশাল শো’তে যে গানগুলো তিনি গেয়েছেন সেগুলো হচ্ছে ‘ডেকোনা পিছু ডেকোনা’, ‘জীবনানন্দ হয়ে সংসারে আজও আমি’,’চলে গেছে যে চলে যাবে সে’, ‘নিজেই নিজের কাছে গল্প বলে’, ‘আমি যেন এক রাত্রি’, ‘ যেওনাগো হয় যদি কোন অনাসৃষ্টি’ এবং ‘হারানো দিনের স্মৃতি’। স্পেশাল শো’তে গান গাওয়া প্রসঙ্গে ওস্তাদ নিয়াজ মোহাম্মদ চৌধুরী বলেন,’ আমার দৃষ্টিতে খন্দকার ইসমাইল একজন ভালো মানুষ। ব্যক্তি ইসমাইলকে আমি খুব পছন্দ করি। আমার ব্যাপারে সবসময়ই সে তার সাধ্যমতো যথেষ্ট আন্তরিক। তো যিনি আমার প্রতি আন্তরিকতা নিয়ে এগিয়ে আসবেন তার অনুষ্ঠানে যেতে নিশ্চয়ই আমার ভালোলাগবে। দর্শকের ভালোলাগবে আশাকরি আমার স্পেশাল শো’টি।
আসছে ২৫ সেপ্টেম্বর এটিএন বাংলায় রাত ১১ টায় ‘ওস্তাদ নিয়াজ মোহাম্মদ চৌধুরী স্পেশাল শো’ প্রচার হবে। এদিকে জি-সিরিজের ব্যানারে গত বছরের শেষপ্রান্তে তার নতুন এ্যালবাম ‘ওস্তাদ নিয়াজ মোহাম্মদ চৌধুরী’ প্রকাশ পায়। এ্যালবামে মোট নয়টি গান আছে যার সবগুলোই তার নিজে সুর করা। ছয়টি গান তিনি নিজেই লিখেছেন। বাকী তিনটি গান লিখেছেন মুন্শী ওয়াদুদ, মনিরুজ্জামান মনির ও ফয়সাল আহমেদ। নিয়াজ মোহাম্মদ চৌধুরী প্রথম প্লে-ব্যাক করেন এহতেশাম পরিচালিত ‘গীত কাহি সংগীত কাহি’ ছবিতে। এরপর তিনি ‘নতুন বউ’, ‘দিওয়ানা’, ‘দেনা পাওনা’ , ‘চকোরী’ ও ‘মিস সুন্দরী বাংলাদেশ’ ছবিতে প্লে-ব্যাক করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 14 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ