এ জীবনের দুঃখ জাকিয়া সুলতানা

প্রকাশিত: 7:23 PM, April 22, 2020

আমি কখনোই আমাকে ভাল রাখার দায়িত্ব
তুলে দেইনি- কারো হাতে।
আমার এক জীবনের দুঃখের গল্প বলিনি-
কোন সুবিধাবাদীর কাছে।
কারণ, আমি জানি,
দুঃখ শুনার মত সেই মানুষগলি আজ
এই অমানুষদের ভীরে হারিয়ে গেছে।
আমার সর্বপ্রকার অনুভূতি নিয়ে
আমার মতই আমি
একটি জীবন অতিবাহিত করে
এই নশ্বর ইহধাম ত্যাগ করতে চাই।
আমি কিছু মানুষের আখাঙ্কিত শিকারি বৈ কিছুই নই।
শকুনের দলকে আমার চেনা হয়ে গেছে —
আমাকে সমাজ নামক নোংরা জলাশয়ে
ফেলে রেখে যাবে অবজ্ঞায়।
সেই জলাশয়ের বিষাক্ত কীট’রা
আমাকে নিয়ে মেতে উঠবে আদিম উল্লাসে।
তারপরে, সেইসব বিষাক্ত কীটের দল
আমার বিরুদ্ধে রাজপথে নামবে-মিছিল নিয়ে।
এবং সেই মিছিলের স্লোগানে
আমাকে সম্বোধন করবে বেসামাল বলে।
.
আমি জানি, আমার দুঃখের গল্প শুনলেই –
এইসব সুবিধাবাদীরা আনন্দে মেতে উঠে।
তীব্র আকাঙ্ক্ষায় অবিরত চেষ্টা চালিয়ে যায়,
ধূর্ত শেয়ালের মত কৌশলে বশ করতে –
আমার অন্তর্ভেদী তীক্ষ্ণ দৃষ্টিতে,
এদের করুণার অন্তরালের
লিকলিকে জিভ দেখলেই-
ঘেন্নায় একদলা থুতু জমে যায় মুখে।
আমি তীব্র ক্ষোভে মুখ ফিরিয়ে নেই,
বিশ্ব ভূ-খন্ডের সমস্ত সুবিধাবাদীদের কাছ থেকে।
আমি, আমাকে ভাল রাখার দায়িত্ব আমিই নেই,
আমার একান্ত আপন সত্ত্বাকে নিয়ে আমি
আপন ভুবনে বিচরন করতেই স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করি ।
মাঝরাতে একজীবনের সুখ -দুঃখের
সেই আনন্দ -বেদনার স্মৃতির ভুবনে
একাই হাসি, একাই কাঁদি।
একাকীত্বের সাথে সঙ্গম করে জন্ম দেওয়া
আমার একমাত্র সন্তান
‘অন্ধকার” কে বড়ই আপন মনে হয়।।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 64 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ