সুনামগঞ্জে করোনা ভাইরাসের অজুহাতে” নিত্য পণ্যের দাম বৃদ্ধি

প্রকাশিত: 10:17 PM, March 19, 2020

মিজানুর রহমান মিজান: প্রানঘাতি করোনা ভাইরাসের কারনে সারা পৃথিবীর মানুষ যখন প্রান বাঁচাতে তটস্থ সেখানে জেলা শহর সুনামগঞ্জের ব্যবসায়ীরা জনগনের অসহায়ত্বকে পুঁজি করে টাকা কামাতে ব্যস্থ। যেকোন গুজবের অজুহাতে কতিপয় মজুতদার কতৃক জনগনকে জিম্মি করে টাকা আদায়ের সহজাত অভ্যাসে পরিনত হয়েছে সুনামগঞ্জের বাজার।
প্রশাসনের তেমন কোন মনিটরিং না থাকায় কতিপয় অসাধু ব্যবসায়ীরা নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য চাল, ডাল, তেল, চিনি, পিয়াজ, রসুন, লবন, মাছ, মাংশ, সবজী সহ সকল ধরনের পন্যের মুল্য ৮০ থেকে ১০০গুন পর্যন্ত বাড়িয়ে দিয়েছে। ফলে আতংকিত সাধারন জনগন এখন দিশেহারা। অজানা আতংকে সুনামগঞ্জের ক্রেতা সাধারন প্রয়োজনের অতিরিক্ত খাদ্যপণ্য কিনে রাখতে হুমড়ি খেয়ে পড়েছেন।
গত ২৪ ঘন্টায় সুনামগঞ্জে মাস্ক সহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য সহ সকল জিনিষের দাম বেড়ে গেছে। ৫০ কেজি চালের বস্তা ১৬০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে ২২০০টাকা, পিয়াজের কেজি ৩৫ টাকা থেকে বাড়িয়ে ১১০ টাকা, রসুন ৪৫ টাকা থেকে ২০০ টাকা, আলু ১২ টাকা থেকে ২৫ টাকা, এছাড়া ও তেল, লবন, মরিচ, আদা, মাছ সহ সকল নিত্য পন্যের দাম বাড়ানো হয়েছে।
এদিকে অতিরিক্ত মুল্যে পন্য বিক্রির দায়ে ছাতক উপজেলা সদরের ৩ ব্যবসায়ীকে ৪৫ হাজার টাকা এবং জগন্নাথপুর উপজেলা সদরের বাজারে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানে ৭ ব্যবসায়ীকে ৬০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন।

কিন্ত জেলা সদরের বাজারে এখনো কোন এ্যাকশন চালানো হয়নি, ফলে অসাধু ব্যাবসায়ীরা প্রকাশ্য দিবালোকে জনগনের টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে।

বাজার সুত্রে প্রকাশ, শহরে প্রত্যেকটি পণ্যের যথেষ্ট মজুদ আছে তবে ক্রেতারা বেশি পরিমাণ পণ্য কিনছেন দেখে অসাধু বিক্রেতারা বাজারে সকল দ্রব্যের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে।

এ ব্যাপারে প্রশাসনের পক্ষ থেকে ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে এখনই বাজার নিয়ন্ত্রণ করা প্রয়োজন বলে ভুক্তভোগীরা দাবী করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 52 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ