চাঞ্চল্যকর শিশু তুহিন হত্যার লোম হর্ষক স্বীকারোক্তি মুলক জবানবন্দী প্রদান

প্রকাশিত: 4:19 PM, October 19, 2019

20191018_231027অনলাইন ডেস্ক : ঘুমন্ত শিশুকে কোলে করে আনেন বাবা, খুন করেন চাচা প্রেস ব্রিফিং এ এমন তথ্যই দিলেন পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান।
সুনামগঞ্জের দিরাই উপজেলায় শিশু তুহিনকে (৫) হত্যার দায় শিকার করেছেন দুই চাচাসহ তার বাবা।

মঙ্গলবার (১৫ অক্টোবর) সন্ধ্যায় এক সংবাদ সম্মেলনে আলোচিত এই খুনের ঘটনা সম্পর্কে এমন চাঞ্চল্যকর তথ্য দিয়েছে সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপার মো. মিজানুর রহমান।

পুলিশ সুপার জানান, শিশু তুহিন খুনের নৃশংস ঘটনায় তার বাবা, তিন চাচা ও চাচাতো ভাই জড়িত ছিল। প্রতিপক্ষকে ফাঁসাতে ঠান্ডা মাথায় বাবা-চাচারা মিলে খুন করে ৫ বছরের শিশু তুহিনকে। ঘুমন্ত শিশুটিকে বাবা আব্দুল বাছির কোলে করে বাড়ির বাইরে নিয়ে যান। বাবার কোলেই ঘুমন্ত অবস্থায় শিশু তুহিনকে ছুরি দিয়ে জবাই করে চাচা নাসির উদ্দিন।

তিনি আরও জানান, এ সময় নাছিরকে সহযোগিতা করেছিল অপর দুই চাচা মছব্বির ও জমসেদ এবং চাচাতো ভাই শাহরিয়ার।

এর আগে সুনামগঞ্জ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে ১৬৪ ধারা জবানবন্দিতে খুনের ঘটনায় সম্পৃক্তার কথা নিশ্চিত করেছে শিশু তুহিনের চাচা নাসির উদ্দিন ও চাচাতো ভাই শাহরিয়ার।

ঘটনায় জড়িত বাবা আব্দুল বাছির, চাচা মছব্বির আলী ও জমসেদ আলীকে তিন দিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত।

উল্লেখ্য, গত ১৪ অক্টোবর ভোরে দিরাই উপজেলা কেজাউড়া গ্রামে পরিবারের অগোচরে ৫ বছরের শিশু তুহিনকে কে বা কারা শিশুটির কান ও যৌনাঙ্গ কেটে হত্যার পর লাশটি গাছের সঙ্গে রশি দিয়ে বেঁধে রাখে এবং হত্যায় ব্যবহৃত দুইটি ছুরি তার পেটে ঢুকিয়ে রেখে চলে যায়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 19 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ