বাংলাদেশের উন্নয়নের অংশীদার হতে চান বিল গেটস।

প্রকাশিত: 6:49 PM, September 27, 2019

Screenshot_20190927-184038নিউজ ডেস্ক: বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করে দেশটির উন্নয়নের অংশীদার হতে চান মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা, বিল অ্যান্ড মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের কো-চেয়ারম্যান বিল গেটস।
বৃহস্পতিবার (২৬ সেপ্টেম্বর) লোটে নিউইয়র্ক প্যালেস হোটেলের বাইলেটারেল মিটিং রুমে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে এই আগ্রহের কথা জানান মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস। এ সময় উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রীর তথ্যপ্রযুক্তি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়, ন্যাশনাল অ্যাডভাইজারি কাউন্সিল অব নিউরো ডেভেলপমেন্ট ডিজঅর্ডার অ্যান্ড অটিজম অব বাংলাদেশের চেয়ারপারসন সায়মা ওয়াজেদ হোসেন পুতুল, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন, প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান প্রমুখ।
জানা যায়, মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস বাংলাদেশে বিল গেটস ফাউন্ডেশন ও মাইক্রোসফট কর্পোরেশনের মাধ্যমে সরকারের বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের অংশীদার হতে ইচ্ছা প্রকাশ করেছেন। এসময় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের সাথে মাইক্রোসফটের প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটস কাজ করার আগ্রহ পোষণ করে তার বিভিন্ন পরিকল্পনার কথা প্রধানমন্ত্রীর কাছে তুলে ধরেছেন।
সূত্র বলছে, বিল গেটসের ফাউন্ডেশন বাংলাদেশকে সরাসরি কোন তহবিল দেয় না। গেটস ফাউন্ডেশন গ্লোবাল ফান্ডসহ বেশকিছু প্রতিষ্ঠানকে অর্থ দেয়। যেসব অর্থ বাংলাদেশের এনজিওগুলো পেয়ে থাকে। গেটস ফাউন্ডেশন সাধারণত স্বাস্থ্য খাতের উন্নয়নের জন্য ফান্ড দিয়ে থাকে।
প্রসঙ্গত, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের সভায় যোগ দিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অবস্থান করছেন। তিনি মূল অনুষ্ঠানের পাশাপাশি অনেকগুলো দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে অংশ নিবেন। এর মধ্যে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, নেদারল্যান্ডসের প্রধানমন্ত্রী মার্ক রুট ও মার্শাল, ইল্যান্ডের প্রেসিডেন্ট হিলডা হেইন, ইন্টারন্যাশনাল ক্রিমিনাল কোর্টের প্রধান কৌশুলি ফেতু বেনসুদা, ইউনেস্কোর সাবেক মহাপরিচালক ইরিনা বুকোভা, অস্ট্রেলিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও স্যানিটেশন অ্যান্ড ওয়াটার ফর অলের চেয়ারম্যান কেভিন রাড ও এক্সনমোবিলের এলএনজি মার্কেট ডেভেলপমেন্টের চেয়ারম্যান এলক্স ভলকভের প্রমুখের সঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক করার কথা রয়েছে। তথ্যসুত্র: ফেইসবুত।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 28 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ