সিলেটে ‘স্প্রে পার্টি’র আগমন: আতঙ্কে জনগন, সতর্ক প্রশাসন।

প্রকাশিত: 11:56 AM, August 20, 2018

FB_IMG_1534744158613অনলাইন ডেস্ক :
গাড়িতে, ট্রেনে, লঞ্চে কিংবা পথেঘাটে অজ্ঞান পার্টির কথা শুনেছেন। এখন আর যাত্রা পথে নয় সেই ‘স্প্রে পার্টি’ পৌছে গেছে আপনার শোবার কিংবা রান্নাঘরে। অভিনব এই পদ্ধতি ছড়িয়ে পড়েছে পুরো সিলেটে। স্প্রে পার্টির তৎপরতা ব্যাপক হারে বৃদ্ধি পাওয়ায় আতঙ্ক দেখা দিয়েছে জনমনে। খাবারে অথবা খালি ঘরে তীব্র চেতনানাশক এই স্প্রে করা হয় ডাকাতি কিংবাচুরির প্রক্রিয়াকে সহজ করতে। আর এই স্প্রে’র কারণে শুধু ধনসম্পদ হারাচ্ছেন না, অনেককে ঘুরে আসতে হচ্ছে মৃত্যুর দরজা থেকে। তবে স্থানীয় প্রশাসন বলছে, এ বিষয়ে প্রত্যেককে সচেতনতা বাড়াতে হবে।গত বছর দুয়েক ধরেই সিলেটে জনমনে আতংক ছড়াচ্ছে ‘স্প্রে পার্টি’। বিশেষ করে গ্রীষ্মকালে লোকজনরা বেশি আক্রান্ত হচ্ছেন। এছাড়াও যারা একতলা কিংবা উচুভবনের নিচতলায় বাস করছেন তারাও ‘স্প্রে পার্টি’র শিকার হচ্ছেন। এ বছরের জুলাই মাস থেকে শুরু করে এ ঘটনার শিকার হয়েছেন সিলেটের বেশ কয়েকজন বাসিন্দা। স্প্রে পার্টির কবলে পড়ে খুইয়েছেন সর্বস্ব। এর মধ্যে ঘটনার আঁচ করতে পেরে বেঁচেও গেছেন কয়েকজন।আগস্ট মাসের শুরুর দিকের ঘটনা। সিলেট নগরীর আখালিয়া এলাকার একটি যৌথ হিন্দু পরিবার। থাকেন একতলা বাসায়। সন্ধ্যার দিকে রান্নার সময় জানালার দিক থেকে এক ধরণের গন্ধ পেয়েছিলেন ঘরের গৃহিনী। রাস্তার পাশ দিয়ে কেউ সুগন্ধী মেখে গেছেনভেবে ঘটনাটি পাত্তা দেননি তিনি। রাতে সবাই খেলেও খাননি ঘরের বড় গৃহিনী। যারা খেয়েছিলেন তারা হঠাৎ করেই একে একে খুব অসুস্থ হয়ে পড়লেন। তাদের অসুস্থতা দেখে হতবাক হয়ে পড়লেন বড় গৃহিনী। তাড়াতাড়ি করেআশপাশের লোকজন ডেকে আনেন তিনি। সারা রাতভর তাদের চিকিৎসা দেয়া হয়। পরে লোকেমুখে শুনে বুঝতে পারেন রান্না ঘরে সেই গন্ধের মূল রহস্য। আখালিয়ার সেই বাড়ির লোকজহন ডাকাতি থেকে সৌভাগ্যক্রমে বেঁচে গেলেও এ ধরণের ঘটনার শিকার হয়ে মূল্যবান জিনিসপত্র আর টাকা খুঁইয়েছেন সিলেট নগরীর কয়েকটি পরিবার।এ ধরণের ঘটনা মূলত পূর্ব পরিকল্পনার জের থেকেই ঘটে থাকে। ঘটনার জন্য টার্গেট করা হয় ধনীদের বাসা। বিশেষ করে একতলা বাসাতেইডাকাতির পরিকল্পনা নিয়েই স্প্রে করা হয়। শুধু রাতের বেলায় নয় দিনেও এ ধরণের ঘটনার শিকার হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। অনেক বাসাবাড়িতে জানালার পাশেই রান্নাঘর রাখাহয়। সেই সুযোগ নিচ্ছে দুর্বৃত্তরা, রান্নার সময় কিংবা খাবারে স্প্রে করে মিশিয়ে দেয়া হচ্ছে তীব্র চেতনানাশক। পরে সেই খাবার খেয়ে অচেতন হওয়ার পরেই বিনা বাধায় লুট করা হচ্ছে ঘর। শুধু রান্নাঘরে নয় স্প্রে পার্টি ঘরের জানালা কিংবা ভেন্টিলেটরের ফাঁক দিয়ে স্প্রে করে অজ্ঞান করছে লোকজনদের।এ বিষয়ে সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (মিডিয়া) মুহম্মদ আবদুল ওয়াহাব জানান- স্প্রে পার্টির আতঙ্ক কাটাতে পুলিশ বেশ তৎপর। আসলে এ ধরণের ঘটনাগুলো এমন সময়ে ঘটছে যেটা অনুমান করা যাচ্ছেনা। ঘটনা প্রতিরোধ করতে সব এলাকায় পুলিশ টহল বাড়ানো হয়েছে।তিনি এ ধরণের ঘটনা প্রতিরোধ করতে মানুষকেসচেতন আর সতর্ক থাকারও অনুরোধ জানান। তিনি বলেন, রান্না করার সময় কিংবা শোতে যাওয়ার আগে এই বিষয়গুলোর ব্যাপারে সতর্ক হলেই এ ধরণের ঘটনা ঘটবেনা।

কৃতজ্ঞতায়: সি:ভিউ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 28 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ