ইসরাইলের সঙ্গে বন্ধুত্ব হবে ‘রাজনৈতিক আত্মহত্যা’: ঢাকায় ফিলিস্তিনি দূত

প্রকাশিত: 10:55 PM, May 15, 2016

sunamnews

ফিলিস্তিনের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স ইউসুফ এস ওয়াই রামাদান (ডানে)

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ঢাকায় নিযুক্ত ফিলিস্তিনের চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স এবং মিশন প্রধান ইউসুফ এস ওয়াই রামাদান বলেছেন, ফিলিস্তিনি জনগণের নৃশংসতায় লিপ্ত ইসরাইলের সঙ্গে বন্ধুত্ব হবে বাংলাদেশের কোনো রাজনৈতিক দলের জন্য রাজনৈতিক আত্মহত্যা।

ঐতিহাসিক নাকবা দিবসের ৬৮তম বার্ষিকী উপলক্ষে শনিবার বিকেলে দূতাবাসে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ মন্তব্য করেন। ‘আল নাকবা’ অর্থ হচ্ছে বিপর্যয়। ১৯৪৮ সালের ১৫ মে ফিলিস্তিন ভূখণ্ড থেকে সাত লাখেরও বেশি অধিবাসীকে বিতাড়িত করে ইসরাইল নামক অবৈধ রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল। অবৈধ রাষ্ট্র ইহুদিবাদী ইসরাইল প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর এ দিনটিকে প্রতি বছর নাকাবা বা বিপর্যয় দিবস পালন করেন ফিলিস্তিনিরা।

সংবাদ সম্মেলনে ফিলিস্তিনি চার্জ দ্য অ্যাফেয়ার্স উল্লেখ করেন, ফিলিস্তিনের সঙ্গে বাংলাদেশের সম্পর্ক খুবই দৃঢ়। রাজনৈতিক ও ধর্ম বিশ্বাস নির্বিশেষে সব বাংলাদেশির নির্যাতিত ফিলিস্তিনিদের ন্যায়সঙ্গত দাবির প্রতি দৃঢ় সমর্থন রয়েছে।

ইউসুফ রামাদান বলেন, ‘বাংলাদেশের কোনো রাজনৈতিক দল বা ব্যক্তি যদি ইসরাইলের কোনো রাজনৈতিক দল, ব্যক্তি কিংবা গোয়েন্দা সংস্থার সঙ্গে সম্পর্ক গড়ে তোলে, সেটা হবে তাদের রাজনৈতিক আত্মহত্যা।’

বাংলাদেশ সরকারের মন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ নেতারা কয়েকদিন ধরে অভিযোগ করে আসছেন যে, সরকারকে উৎখাতের ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে ভারতের আগ্রায় ইসরাইলের লিকুদ পার্টির নেতা ও মোসাদ এজেন্ট মেন্দি এন সাফাদির সঙ্গে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব আসলাম চৌধুরী সাক্ষাৎ করেছেন।

তবে বিষয়টিকে ‘ফাঁদ’ আখ্যা দিয়ে আসলাম চৌধুরী বলেছেন, যাদের সঙ্গে তার গ্রুপ ছবি ও ডিনারের ছবি তুলে ছড়িয়ে দেয়া হয়েছে, তারা ইসরাইলি রাজনীতিক কিংবা মোসাদের সদস্য তিনি তা জানতেন না।

এ বিষয়ে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরও গতকাল শুক্রবার দলের অবস্থান ব্যাখ্যা করেন। তিনি বলেন, ‘বিএনপির সঙ্গে ইসরাইলের কোনো সম্পর্ক নেই এবং বিএনপি মনে করে যে, প্যালেস্টাইনের (ফিলিস্তিন) যে অধিকার, সার্বভৌমত্ব, এটার প্রতি তাদের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে। তারা বরাবরই তার পক্ষে কথা বলেছে। ইউনাইটেড নেশনসেও (জাতিসংঘ) বলেছে। অন্যভাবেও বলেছে এবং বরাবরই প্যালেস্টাইনি জনগণের পক্ষে তারা ছিল।’

বিএনপির অবস্থান স্পষ্ট করার পরও এ নিয়ে আলোচনা চলতে থাকায় ফিলিস্তিনি দূতাবাসে ছুটে যান বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। সেখানে তিনি ফিলিস্তিনি দূতের সঙ্গে বৈঠক করেন।

এ ব্যাপারে ফিলিস্তিনের দূত সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘বিএনপি নেতা আমাকে আশ্বস্ত করেছেন যে, ইসরাইলের সঙ্গে তার দলের কোনো সম্পর্ক নেই। ফিলিস্তিনিদের ন্যায়সঙ্গত অধিকারের প্রতি দলের খুবই জোরালো সমর্থন রয়েছে।’

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের উদ্ধৃতি দিয়ে দূত বলেন, আসলাম চৌধুরী ইসরাইলের লোকটিকে চিনতেন না এবং সবকিছুই ভুলক্রমে ঘটেছে।

দূত আরো বলেন, বিএনপি মহাসচিব সুস্পষ্টভাবে বলেছেন যে, ইসরাইলের সঙ্গে বিএনপির কোনো সম্পর্ক নেই এবং তিনি ‘ইসরাইলের সঙ্গে বিএনপির সম্পর্ক অস্বীকার’ করে সংবাদ বিজ্ঞপ্তি দিয়েছেন। এই বিষয়ে দল দুঃখিত।

বিএনপির এ উদ্যোগকে ইতিবাচক উল্লেখ করে ফিলিস্তিনি দূত এ নিয়ে আর যেন তিক্ততা না বাড়ে সেই প্রত্যাশাও করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 14 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ