মাদারীপুরে খালা-ভাগ্নি গণধর্ষণ : মূল অভিযুক্তরা এখনও ধরা-ছোঁয়ার বাইরে

প্রকাশিত: 9:44 AM, April 2, 2016

মাদারীপুরে খালা-ভাগ্নি গণধর্ষণ : মূল অভিযুক্তরা এখনও ধরা-ছোঁয়ার বাইরে

নিউজ ডেস্ক : গত ২০ নভেম্বর মাদারীপুরের কালকিনি’র ডাসার থানার ঘুনগারকুল গ্রামের প্রাথমিক সমাপনী পরীক্ষার এক শিক্ষার্থী ও তার খালাকে এলাকার আতাউর ও তার সহযোগীরা বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে গণধর্ষণ করে।গড়িমসি করার পর ৫ দিনের মাথায় মামলা নেয় পুলিশ। কিন্তু ৪ মাস পেরুলেও এখনো আদালতে অভিযোগ দাখিল করেনি পুলিশ। নির্যাতিতা পরিবারের সদস্যদের অভিযোগ, পুলিশের সহযোগিতায় প্রধান অভিযুক্ত আসামি আতাউর বিদেশে পালিয়ে গেছে। তাদের দাবি, আসামিদের অব্যাহত হুমকিতে ঘরছাড়া তারা।

 মাদারীপুরের কালকিনিতে খালা ও তার ভাগ্নি পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রীকে গণধর্ষণের মামলার ৪ মাস পেরিয়ে গেলেও ধরাছোঁয়ার বাইরে মূল অভিযুক্তরা। পরিবারের অভিযোগ, প্রভাবশালীদের ছত্রছায়ায় ও পুলিশের সহায়তায় প্রধান অভিযুক্ত আতাউর দর্জি দেশ ছেড়ে পালিয়ে গেছে। আর, আসামিদের অব্যাহত হুমকিতে বাড়ি ছাড়া হয়েছেন তারা।

পুলিশ এখনো মামলার অভিযোগপত্র আদালতে দাখিল না করায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মানবাধিকার কর্মীরা। তবে পুলিশ বলছে, শিগগিরই মামলার অভিযোগপত্র জমা দেয়া হবে।

পুলিশের ভূমিকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মানবাধিকার কর্মী মাসুদ পারভেজ। তিনি বলেন, ‘মামলা নেওয়া বা চার্জশিট দেওয়া থেকে শুরু করে বিভিন্ন প্রক্রিয়াগুলো অত্যন্ত ধীরগতিতে এগুচ্ছে। এ ঘটনার কারণে মানবাধিকার লঙ্ঘিত হচ্ছে।’

আসামি বিদেশে পালিয়ে যাবার কথা স্বীকার করে পুলিশ ডাসার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. এমদাদুল হক জানালেন, শিগগিরই মামলার অভিযোগপত্র আদালতে জমা দেয়া হবে।

ধর্ষণের ঘটনায় ২৫ নভেম্বর আতাউর দর্জিকে প্রধান আসামি করে অজ্ঞাত আরো ৫ জনের বিরুদ্ধে ডাসার থানায় মামলা দায়ের করে নির্যাতিতার পরিবার। এ ঘটনায় বিল্লাল হোসেন নামের একজনকে গ্রেপ্তার করলেও সম্প্রতি জামিনে বেরিয়ে আসে সে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 15 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ