মাঠে চার স্তরে আইনশৃংখলা বাহিনীর ৩২৬৮ সদস্য

প্রকাশিত: 12:49 AM, March 31, 2016

মাঠে চার স্তরে আইনশৃংখলা বাহিনীর ৩২৬৮ সদস্য

স্টাফ রিপোর্টার :
আজ বৃহস্পতিবার ছাতকে জেলার প্রথম ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন। জেলার প্রথম ধাপের ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন করতে নির্বাচন কমিশন এবং জেলা পুলিশ প্রশাসন সব প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছেন।
বুধবার সকাল থেকে প্রতিটি ভোট কেন্দ্রের ব্যালট   বাক্স, ব্যালট পেপার ও নির্বাচনে সকল সামগ্রী সরবরাহ করা হয়েছে। বিকালে ভোট কেন্দ্রে অবস্থান নিয়েছেন প্রিজাইডিং অফিসার, পুলিশ অফিসার, আইন শৃংখলা বাহিনীর সদস্যরা।
এদিকে পূর্বের নির্ধারিত ভোট কেন্দ্রে সংখ্যা ১৩৭ থেকে একটি বাড়িয়ে ১৩৮টি করা হয়েছে। গোন্দিগঞ্জ-সৈদেরগাঁও ইউনিয়নের হাইল কেয়ারী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে একটি নতুন ভোট কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছে।
পুলিশ সুপার কার্যালয় থেকে জানা গেছে, ছাতক উপজেলার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আইনশৃংখলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা মোতায়েন থাকবে । র‌্যাব, পুলিশ, বিজিবি ও আনসারসহ মোট ৩২৬৮ জন আইনশৃংখা বাহিনীর সদস্য মাঠে কাজ করবেন।
পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদের নেতৃত্বে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, সহকারি পুলিশ সুপার, ওসি পদ মর্যাদার কর্মকর্তা, এসআই, এএসআই, কনস্টেবলসহ মোট ৭৪০ জন পুলিশ। র‌্যাব-৯ সুনামগঞ্জ ক্যাম্পের ৩২ জন কর্মকর্তা ও সদস্য, ৩ প্লাটুন বিজিবি সদস্য (১৫০) ও ২৩৪৬ জন আনসার সদস্য নিরাপত্তার দায়িত্বে নিয়োজিত থাকবেন।
র‌্যাব, বিজিবি, স্ট্রাইকিং ফোর্স, পুলিশের বিশেষ টিম শহরে টহল দিয়ে নিরাপত্তার বিষয়টি জানানো হয়েছে। চারস্তর বিশিষ্ট নিরাপত্তা ব্যবস্থার মধ্যে র‌্যাব, পুলিশ, বিজিবি ও আনসার বাহিনীর পাশাপাশি ভ্রাম্যমান আদালত ও ষ্ট্রাইকিং ফোর্স নিয়মিত টহল দিবে প্রতিটি ইউনিয়নের কেন্দ্রে-কেন্দ্রে। বুধবার নির্বাচনী আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক এক বিশেষ সভায় এ তথ্য জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক শেখ রফিকুল ইসলাম।
উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ইউসুবুর রহমান জানান, সুষ্ঠু নির্বাচন করতে সকল ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। যথা সময়ে নির্বাচনী মালামাল সংশিষ্টদের কাছে হস্তাস্তরসহ কেন্দ্রে-কেন্দ্রে পৌঁছে দেয়া হয়েছে। সুষ্ঠু, অবাধ ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে নির্বাচন করতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে।
পুলিশ সুপার হারুন অর রশীদ বলেন,‘জেলার প্রথম নির্বাচন হিসাবে নিরাপত্তার বিষয়ে আমাদের সব ধরনের প্রস্তুতি রয়েছে। আমাদের আশা সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। কোথাও কেউ আইনশৃংখলা পরিস্থিতির অবনতি ঘটাতে চাইলে কঠোর হস্তে দমন করা হবে।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 22 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ