ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, রণক্ষেত্র চট্টগ্রাম, নিহত ১

প্রকাশিত: 1:01 AM, March 30, 2016

ছাত্রলীগের দু’গ্রুপে সংঘর্ষ, রণক্ষেত্র চট্টগ্রাম, নিহত ১

নিউজ ডেস্ক : চট্টগ্রামের প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ে বিদায়ী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি করাকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে এক শিক্ষার্থী নিহত হয়েছেন। এই ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও ২ শিক্ষার্থী। এ ঘটনার জের ধরে নগরীর ওয়াসা ও প্রবর্তক  মোড়ের ৫০টির বেশি দোকান ও প্রতিষ্ঠানে আগুন ধরিয়ে দেয় বিক্ষুব্ধ শিক্ষার্থীরা।  ভাঙচুর করা হয় ২০টির বেশি সিএনজি। প্রায় দুই ঘণ্টা বন্ধ থাকে সব ধরনের যান চলাচল। এদিকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের ৭ শিক্ষার্থীকে আটক করেছে পুলিশ। এদিকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। গতকাল দুপুরে দামপাড়া ক্যাম্পাসে এই ঘটনা ঘটে। নিহত শিক্ষার্থীর নাম সোহেল আহমেদ। তিনি প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের এমবিএ’র ছাত্র ছিলেন। এই ঘটনায় আহত অপর দুই সহপাঠী হলেন- মো. ইমতিয়াজ ও রনি চন্দ্র শীল। তবে হামলাকারী ও আহত ছাত্রদের দুইটি অংশ ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত বলে জানান শিক্ষার্থীরা। আহত হওয়ার পরপরই সোহেলকে প্রথমে চট্টগ্রামের প্রবর্তক মোড়ের বেসরকারি সিএসসিআর হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। এরপর সেখান থেকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হলে কর্তব্যরত ডাক্তাররা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের দামপাড়া ক্যাম্পাসের শিক্ষার্থীরা জানান, গতকাল সেখানে বিবিএ ৩১তম ব্যাচের বিদায় অনুষ্ঠানের আয়োজন চলছিল। এই সময় অনুষ্ঠানের বিভিন্ন দায়িত্ব বণ্টন নিয়ে সোহেলের সঙ্গে কথা কাটাকাটি হয় কয়েকজন ছাত্রের। একপর্যায়ে সেখানে আহত ইমতিয়াজ ও রনি হাজির হলে এই নিয়ে শুরু হয় কথা কাটাকাটি। পরে তা রূপ নেয় বাকবিতণ্ডায়। প্রতিপক্ষ ছাত্ররা সোহেলকে কথা আছে বলে ডেকে নিয়ে ছুরিকাঘাত করে ফেলে রেখে চলে যায়। পরে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নেয়া হলে তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে সোহেলের পক্ষ নিয়ে চট্টগ্রামের ওয়াসা ও প্রবর্তক  মোড়ের আরেকটি ক্যাম্পাসে ব্যাপক ভাঙচুর চালায় কতিপয় ছাত্ররা। এই সময় অন্তত ৫০টির বেশি দোকান ও প্রতিষ্ঠানে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। ভাঙচুর করা হয় ২০টির বেশি সিএনজি। রাস্তায় ব্যারিকেড ও আগুন ধরিয়ে দেয়ার কারণে প্রায় দুই ঘন্টার জন্য বন্ধ হয়ে যায় সব ধরনের যান চলাচল।
নগরীর পাঁচলাইশ থানার অদূরে কেশ কয়েকটি ইভেন্ট প্রতিষ্ঠানে গিয়ে আগুন ধরিয়ে দেয় বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী। আতঙ্গে লোকজন ছুটোছুটি করতে গিয়ে মাটিতে পড়ে আহত হন। বিক্ষুব্ধ ছাত্রদের একটি অংশ লাঠিসোটা ও ইটপাটকেল নিয়ে রাস্তায় চলাচলরত গাড়ির ওপর লক্ষ্য করে তা ছুড়তে থাকে। বেশ কয়েকটি ক্লিনিক ও দোকানের দরজা ভেঙে ভেতরে ঢুকে অভিযুক্তদের খুঁজতে থাকে।
বিকাল সাড়ে ৩টায় পরিস্থিতি শান্ত হয়ে আসে। এসময় সোহেলের লাশ নিয়ে প্রবর্তক মোড়ে বিক্ষোভ মিছিল করে বিক্ষুব্ধ ছাত্ররা। এসময় ১০-১২টি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে।  তবে প্রত্যক্ষদর্শী সাইফুল ইসলাম নামের এক শিক্ষার্থী বলেন, ঘটনাটি ঘটেছে বেলা একটায়। আগামী ৩১শে মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের অষ্টম সেমিস্টারের বিদায়ী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হচ্ছিল। এই নিয়ে মূলত দ্বন্দ্বটা। আজ বিদায়ী ভাইদের অনুষ্ঠানের মহড়া চলছিল। তিনি আরও বলেন, হঠাৎ করেই দেখলাম কিছু ছেলে লাঠিসোটা ও ছুরি নিয়ে প্র্যাকটিস রুমের ভেতর ঢুকে এই নিয়ে তর্কাতর্কিতে জড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে হামলা চালালে সেখানে আহত হন সোহেল। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুলিশ ফাঁড়ির নায়েক আবু হামিদ বলেন, সোহেলকে এলোপাতাড়ি ছুরিকাঘাত করা হয়েছে। তার শরীর থেকে প্রচুর রক্ত ক্ষরণ হয়েছে। মেডিকেলের আনার আগে তার জ্ঞান ছিল না। পরে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়েছে। এই বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর আহমেদ রাজীব চৌধুরী বলেন, আমরা পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করছি। ক্যাম্পাস খোলার দিন যাতে এই নিয়ে আবার নতুন করে অনাকাঙ্ক্ষিত কোন ঘটনা ঘটে সেজন্য আমরা জরুরি বৈঠক করে পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানাবো। এই ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কোন মামলা দায়ের করা হয়েছে কিনা তা জানতে চাইলে তিনি বলেন, এখনি এই বিষয়ে কিছু বলতি পারছি না। আমরা আগে দোষীদের চিহ্নিত করবো। তারপর একটা ব্যবস্থা নেবো।
চকবাজার থানার ওসি আজিজ আহমেদ বলেন, উত্তেজিত ছাত্রদের একটি অংশ বেশ কিছু দোকানপাট ভাঙচুর করেছে। তারা গাড়িতেও ঢিল ছুড়েছে বলে আমরা শুনেছি। ছাত্রদের সঙ্গে কথা বলে একটি সমাধান বের করার চেষ্টা করছি।  এদিকে বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত পরিস্থিতি শান্ত করতে সন্ধ্যায় নগরীর প্রবর্তক মোড়ে আসেন মেয়র আ জ ম নাসিরউদ্দিন। এসময় বিক্ষুব্ধ ছাত্রদের উদ্দেশে তিনি বলেন, দোষী বিচারের আওতায় আনা হবে। জড়িতদের দ্রুত গ্রেপ্তার করতে পুলিশের সঙ্গে আলোচনা করবো।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 13 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ