সম্মান রক্ষার লড়াই আজ বাংলাদেশের

প্রকাশিত: 3:15 AM, March 26, 2016

সম্মান রক্ষার লড়াই আজ বাংলাদেশের

স্পোর্টস ডেস্ক : আর মাত্র একটি ম্যাচ। প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড। জিতলে শুধু সম্মানটাই প্রাপ্তি হবে। বাংলাদেশের ক্রিকেট ইতিহাসে যুক্ত হবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ওয়েস্ট ইন্ডিজের পর আরও একটি টেস্ট খেলুড়ে দেশকে হারানোর প্রাপ্তি। সেই সঙ্গে দেশবাসীর জন্য মিলবে সান্ত্বনাও। ২০০৭  সাল থেকে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলছে বাংলাদেশ দল। কিন্তু ক্রিকেটের এই ছোট ফরমেটে সাফল্য অধরাই থেকে গেছে। তবে ভারতের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দেখা গেছে অন্য বাংলাদেশকে। ২০১৪ সালে ছিল হংকংয়ের বিপক্ষে হারের লজ্জা। কিন্তু এবার বাছাই পর্বে ছিল দুর্দান্ত দাপট। সুপার টেনে পাকিস্তানের বিপক্ষে হারে অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের সঙ্গে হারলেও ভয়ে কেঁপেছে বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম শক্তি এই তিন দল। নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে এই পর্যন্ত ঘরের মাঠে ওয়ানডে ও টেস্টে সফলতা থাকলেও টি-টোয়েন্টিতে তা শূন্য। এ পর্যন্ত তিনবার মুখোমুখি হয়ে হারতে হয়েছে প্রতিবারই। এবার বিশ্বকাপে আরও শক্তিশালী ব্ল্যাকক্যাপসরা। ভারত, অস্ট্রেলিয়া ও পাকিস্তানকে হারিয়ে  তারা এরই মধ্যে নিশ্চিত করেছে সেমিফাইনাল। এমন একটি দলের বিপক্ষে জয় কতটা সম্ভব? অধিনায়ক মাশরাফি বিন মুর্তজা অবশ্য আত্মবিশ্বাসী ভুল না করলে জয় সম্ভব। তিনি বলেন, ‘পাকিস্তানের সঙ্গে ম্যাচটা বাদ দিলে আমরা অস্ট্রেলিয়া ও ভারতের সঙ্গে ভালো ক্রিকেট খেলেছি। প্রথম ম্যাচে আমরা পাকিস্তানের সঙ্গে এই মাঠে বাজে ভাবে হেরেছি। ভারতের সঙ্গে আমরা মনে করি, শেষ পর্যন্ত ম্যাচেই ছিলাম। শেষ দুইটা ম্যাচ আমরা ভালো ক্রিকেট খেলেছি। ওখানে অনেক ইতিবাচক জিনিস আমরা অর্জন করেছি। এইসব যদি আমরা নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষেও প্রদর্শন করতে পারি, সেক্ষেত্রে ভালো সম্ভাবনা আছে আমাদের।’
ভারতের বিপক্ষে দলের অকল্পনীয় হারের পর দল মানসিকভাবে একেবারে ভেঙ্গে না পড়লেও দল হতাশ তা অকপটে জানিয়েছেন মাশরাফি। তবে শেষ ম্যাচের আগে সেই হার থেকেই শিক্ষা নিয়ে মাঠে মানবে বাংলাদেশ দল। মাশরাফি বলেন, ‘আমি এটাই বলতে চাই সবাই হতাশ। সবাই যেভাবে আমাদের সাপোর্ট করেছেন। এমন না যে আমরা এর আগে হারেনি। অবশ্যই বাংলাদেশের দর্শকরা আমাদের পাশে থাকবে। এখনও আছে। আমরা সবাই বুঝতে পেরেছি, বাসার সবার সঙ্গে কথা হয়েছে। প্রত্যেকটা মানুষই ভেঙ্গে পড়েছে। চেষ্টা করবো সামনের ম্যাচটায় আমাদের সেরা খেলাটা খেলার। যদি সুযোগ থাকে ম্যাচটা জেতার। আমি আশা করি সামনে এমন আরও ভালো কিছু থাকবে।’ নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে শেষ ২০১৩ সালে টি-টোয়েন্টিতে মুখোমুখি হয়েছিল বাংলাদেশ দল। ঢাকার মাঠে বাংলাদেশের বিপক্ষে ২০৪ করে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড গড়ে। কিন্তু নিউজিল্যান্ডকে কাঁপিয়ে মাত্র ১৫ রানের ব্যবধানে হারে টাইগাররা। সেবার দলের পক্ষে ৫০ রান করেছিলেন মুশফিকুর রহীম। এর আগে অবশ্য ২০১২ সালে শ্রীলঙ্কার পাল্লেকেলে ৫৯ রান ও ২০১০ সালে হ্যামিল্টনে ১০ উইকেটের ব্যবধানে জিতেছিল নিউজিল্যান্ড। দলের সদস্য ইশ সাউদি অবশ্য বাংলাদেশকেই এগিয়ে রেখেছেন ইডেন ও ভারতের কন্ডিশনে। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের  মাঠে আমাদের বিপক্ষে ওদের অনেক সাফল্য আছে। আর ইডেনের কন্ডিশনে ওরা একটু এগিয়ে থাকবে।
মাশরাফি অবশ্য বিশ্বাস করে বিষয়টা এতটা সহজ নয়। কন্ডিশন এক হলেও উইকেটে আছে ভিন্নতা। এর অন্যতম প্রমাণ পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটা। তবে দলের শক্তি আছে জয় তুলে নেয়ার। বিশেষ করে সুপার টেনে দলীয় অর্জন খুব একটা ভালো না হলেও ব্যক্তিগত সাফল্যে কিন্তু উজ্জ্বল বাংলাদেশ। গতকাল পর্যন্ত টুর্নামেন্টে শীর্ষ ব্যাটসম্যান ও  বোলার দুজনই বাংলাদেশের। সর্বোচ্চ রান সংগ্র্রাহকের তালিকায় সবার ওপরে আছেন তামিম ইকবাল। ৫ ম্যাচে ৯৭.৩৩ গড়ে বাংলাদেশের ড্যাশিং ওপেনারের সংগ্রহ ২৯২ রান। এ ছাড়াও বোলিংয়ে ৬ ম্যাচে ১০ উইকেট নিয়ে শীর্ষে আছেন সাকিব। এ ছাড়াও সাব্বির রহমান, সৌম্য সরকার, মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ও মুশফিকুর রহীম মুখিয়ে আছেন দলের জন্য মরণ কামড় দিতে। বল হাতে মুস্তাফিজ দুর্দান্ত ফর্মে। তবে আজ শেষ ম্যাচে নিউজিল্যান্ডকে স্পিনে কাবু করতে মাঠে দেখা যেতে পারে নাসির হোসেনকে। এ ছাড়া দলে খুব বড় কোনো পরিবর্তনের আশা নেই। শেষ ম্যাচে দল নিয়ে আত্মবিশ্বাসী মাশরাফি বলেন, ‘আমার অবশ্যই খুব ভালো লেগেছে ছেলেরা যেভাবে খেলেছে। ভারতে আসার আগেও আমরা কনফিউশনে ছিলাম উইকেট সম্পর্কে। কেননা এর আগে আমরা ভারতে কখনও খেলিনি। আইপিএলের অনেক খেলা দেখেছি কিংবা আন্তর্জাতিক কিছু ম্যাচ দেখেছি, কখনও উইকেট ফ্ল্যাট হচ্ছে আবার কখনও রান ১৩০ আবার ১৮০ হচ্ছে। আমি বলবো এটা মানসিকভাবে নেয়াটা অনেক কঠিন ছিল। ছেলেরা ছোটা ছোট ভুল না করলে হয়তো ২-১টি ম্যাচ আমরা জিততে পারতাম। তবে এটা নিয়ে পড়ে থাকতে চাই না। আমাদের সামনে এগিয়ে যেতে হবে। এই অভিজ্ঞতা আমাদের কাজে লাগবে। রেজাল্ট বাদ দিলে নির্দিষ্ট কিছু খেলোয়াড়ের ভালো সময় গেছে। শেষ ম্যাচ আমাদের শতভাগ দিয়ে খেলতে হবে। সুযোগ পেলে অবশ্যই ভালো কিছুই করবো।’

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 10 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ