‘ক্রিকেটে আগামীর পরাশক্তি বাংলাদেশ’ -ভিভিএস লক্ষণ

প্রকাশিত: 2:11 AM, March 8, 2016

‘ক্রিকেটে আগামীর পরাশক্তি বাংলাদেশ’ -ভিভিএস লক্ষণ

স্পোর্টস ডেস্ক : বাংলাদেশে এসেছিলেন স্টার্স স্পোর্টসের কমেনটেটর হিসেবে। মিরপুর স্টেডিয়ামের কমেনট্রি বক্স, আর প্রেস বক্স একই ফ্লোরে অবস্থিত। যে কারণে প্রতিদিনই তাকে দেখি লিফটে, মাঠে; ম্যাচ চলার সময় কিংবা ম্যাচের আগে পরে।

দীর্ঘাকায়, গৌড়বর্ণ, মুখে বিনয়ের হাসি লেগেই থাকে সারাক্ষণ। পাকিস্তান শ্রীলঙ্কা ম্যাচের দিন তার সঙ্গে দেখা লিফটের সামনে। মিরপুর স্টেডিয়ামের চার তলা থেকে নিচে নামবেন তিনি। আমারও নিচে নামার জন্য অপেক্ষা। ভাবলাম, ভারতীয় ব্যাটিং গ্রেট ভঙ্গিপুরাপ্পু ভেঙ্কাটসাই লক্ষণের সঙ্গে কথা বলার এই তো সুযোগ।

‘হাই, লক্ষণজি কেমন আছেন’-(ইংরেজিতে)? মুখ ভরা হাসি নিয়ে জবাব দিলেন,‘ ভালো, আপনি? এরপর হাত বাড়িয়ে দিয়ে আমার পরিচয় দিয়ে একটা ভিজিটিং কার্ড দিলাম তার হাতে। তিনি কার্ডে চোখ বুলিয়ে আমার দিকে বিনয়ের সঙ্গে তাকালেন।

‘এটা কি দৈনিক পত্রিকা’? আমি বললাম, ‘না অন লাইন’। ততক্ষণে লিফট এসে গেছে। আমরা লিফটে উঠলাম। এক হাত দূরে আমরা দাঁড়িয়ে। আমার কাছে মনে হচ্ছিল, আমি যেন ইংরেজী গল্পে পড়া ‘লিলিপুট’, আর তিনি গালিভার!

‘অনলাইন এখানে কেমন চলে? আপনারা কেমন সাঁড়া পাচ্ছেন’? আমি বললাম,‘ ভালোই। সারা বিশ্বের মতো এখানেও অন লাইনের জনপ্রিয়তা বাড়ছে। আমি নিজে আগে প্রিন্ট মিডিয়ায় ছিলাম, এখন অন লাইনে কাজ করছি। এখানে কাজ করার মজা আলাদা।’

ততক্ষণে লিফট নিচে চলে এসেছে। তিনি মাঠে যাবেন। আমিও তার সঙ্গে যাচ্ছি। কারণ আমার কথা শেষ হয়নি। তিনি স্টার্স স্পোর্টসের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ। অন্য মিডিয়ায় ইন্টারভিউ দেওয়ার ক্ষেত্রে বাধ্যবাধকতা থাকলেও থাকতে পারে।

তারপরেও আমি তাকে বললাম,‘ লক্ষণজি আমাকে দুই মিনিট সময় দিবেন? বাংলাদেশ ক্রিকেট নিয়ে কিছু জিজ্ঞাস করার ছিল।’ আমরা মাঠের পাশে এসে দাঁড়ালাম। তিনি বলতে লাগলেন,‘ বাংলাদেশ ক্রিকেটের উত্থানে আমি মুগ্ধ। আগামীতে তোমাদের দল পরাশক্তি হবে, সেই লক্ষণ আমি স্পষ্ট দেখতে পাচ্ছি। ক্রিকেটের জন্য বাংলাদেশ চমৎকার জায়গা।’

বাংলাদেশ দলের কোন বিশেষ দিক আপনার ভাল লাগে?‘টিম উইনিট। সবাই একট্রা হয়ে খেলে। একঝাক প্রতিভাবান খেলোয়াড়। এই দলটা অনেক দূর যাবে। বাংলাদেশের জন্য আমার শুভকামনা থাকবে।’

আইপিএলে মুস্তাফিজ তো আপনার দলে খেলছে।‘হ্যাঁ, সে হবে আমাদের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়। আমি মনে করি, আইপিএল তাকে আরো পরিণিত করবে।’

রমিজ রাজা ও হার্সা ভোগলে মাঠের এক পাশে অপেক্ষা করছেন তার জন্য। লাইট ক্যামেরা সব প্রস্তুত। ‘পরে কথা হবে’- লক্ষণের কথাতেই বুঝে নিলাম, আর কথা বলার সময় নেই তার।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 18 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ