সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপি’র কোন্দল নিরসনের উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্রীয় বিএনপি

প্রকাশিত: 3:04 AM, March 7, 2016

সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপি’র কোন্দল নিরসনের উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্রীয় বিএনপি

অভ্যন্তরীণ কোন্দল নিরসন করে জেলা বিএনপির সাংগঠনিক কার্যক্রম জোরদার করার উদ্যোগ নিয়েছে কেন্দ্রীয় বিএনপি। দলীয় চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ইনাম আহমদ চৌধুরীকে সংগঠনের বিবদমান দুই গ্রুপের সঙ্গে কথা বলারও দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। রবিবার বেলা ১১ টায় ইনাম আহমদ চৌধুরী’র বনানীর বাসভবনে জেলা বিএনপির আহ্বায়ক নাছির উদ্দিন চৌধুরী’র নেতৃত্বে দলীয় নেতৃবৃন্দ দেখা করেছেন এবং সাংগঠনিক কার্যক্রমের বিষয়ে অবহিত করেছেন। আজ (সোমবার) বিকাল ৩ টায় ফজলুল হক আছপিয়ার নেতৃত্বাধীন অংশের সঙ্গে বৈঠক করবেন ইনাম আহমদ চৌধুরী।
প্রসঙ্গত. সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপি ত্রি-ধারায় বিভক্ত হওয়ায় ২০১৪ সালের ১৬ এপ্রিল জেলা বিএনপি, ১১ উপজেলা,   থানা ও পৌর বিএনপির পুরাতন কমিটি বিলুপ্ত করে সাবেক সংসদ সদস্য নাছির উদ্দিন চৌধুরীকে আহ্বায়ক ও সাবেক সংসদ সদস্য কলিম উদ্দিন আহমদ মিলনকে প্রথম সদস্য করে ৮৭ সদস্য বিশিষ্ট জেলা আহ্বায়ক কমিটি গঠন করে দেন দলীয় চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া।
একই বছরের ১৬ নভেম্বর দায়িত্বপ্রাপ্ত আহ্বায়ক কমিটির নেতৃবৃন্দ জেলার ১৬টি সাংগঠনিক ইউনিটের ১২ টির আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করেন। এর আগে অক্টোবর মাসে জেলার দিরাই-শাল্লা ও দিরাই পৌরসভার আহ্বায়ক কমিটি ঘোষণা করা হয়েছিল। একই সময়ে কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-আহ্বায়ক রিজভী আহমেদের উদ্ধৃতি দিয়ে একটি দৈনিকে তাহিরপুর উপজেলা বিএনপির আহ্বায়ক কমিটির নাম ছাপা হয়েছিল। এ নিয়ে জেলা বিএনপির একাংশ বিভিন্ন স্থানে বিক্ষোভ সমাবেশ করে কমিটির বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়। গত ৬ মাসে জেলার ১৬ টি সাংগঠনিক ইউনিটের ১২ টিতে কমিটি ঘোষণা করে জেলা বিএনপি। ৩ টি ইউনিটে পাল্টাপাল্টি সম্মেলনও হয়েছিল। এই অবস্থায় সংগঠনকে আরও শক্তিশালী, ঘুচানো ও ঐক্যবদ্ধ করার জন্য সংগঠনের প্রবীণ নেতা ইনাম আহমদ চৌধুরীকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।
রবিবার ইনাম আহমদ চৌধুরীর ঢাকার বনানীর বাসায় বৈঠক করেছেন- জেলা বিএনপির আহ্বায়ক, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য নাছির উদ্দিন চৌধুরী, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন, কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য মিজানুর রহমান চৌধুরী, সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান দেওয়ান জয়নুল জাকেরীন, ধর্মপাশা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোতালেব খান, শাল্লা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান গণেন্দ্র চন্দ্র তালুকদার, তাহিরপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুল, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলা বিএনপির সভাপতি ফারুক আহমদ, তাহিরপুরের সভাপতি নুরুল ইসলাম, জামালগঞ্জের সভাপতি নুরুল হক আফিন্দি, দলীয় নেতা অ্যাড. আব্দুল হক, ধর্মপাশার সাধারণ সম্পাদক আলী আমজাদ, মধ্যনগরের সভাপতি সবুজ মিয়া, ছাতক পৌর বিএনপির সভাপতি সৈয়দ তিতুমির প্রমুখ।
জেলা বিএনপির প্রথম সদস্য কলিম উদ্দিন আহমদ মিলন বলেন, ‘সাংগঠনিক কার্যক্রমের বিষয়ে অবহিত করা হয়েছে এবং জেলা সম্মেলনের প্রস্তুতির কথাও বলা হয়েছে। তিনি বলেছেন জাতীয় সম্মেলনের পর জেলা কমিটির বিষয়ে সিদ্ধান্ত হবে’। একই মন্তব্য করেন কেন্দ্রীয় বিএনপির কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য মিজানুর রহমান চৌধুরী ও দলীয় নেতা ফারুক আহমদ।
আজ জেলা বিএনপির সাবেক সভাপতি ফজলুল হক আছপিয়াসহ তাঁর সমর্থকরা সাক্ষাৎ করবেন।
জেলা বিএনপির সাবেক সহ সভাপতি নাদীর আহমদ বলেন, ‘পৌর নির্বাচনে দলের প্রার্থীদের ভরাডুবি, দলে গ্রুপিং আরো বাড়িয়ে দেওয়াসহ এক তরফা কমিটি গঠন বিষয়ে অভিযোগ জানাবো আমরা।’ একই কথা জানালেন- সুনামগঞ্জ পৌর বিএনপির সাবেক ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাড. শেরেনুর আলী।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 14 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ