ব্লগার হত্যায় সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান ইউএসসিআইআরএফের

প্রকাশিত: 9:46 AM, February 27, 2016

প্রান্তডেস্ক:ব্লগার ও লেখক অভিজিৎ রায় হত্যাকাণ্ডের এক বছর উপলক্ষে বিবৃতি দিয়েছে ইউএস কমিশন অন ইন্টারন্যাশনাল রিলিজিয়াস ফ্রিডম (ইউএসসিআইআরএফ)। সংস্থাটির চেয়ারম্যান এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, অভিজিৎ রায়ের পরিবারের প্রতি ইউএসসিআইআরএফ গভীর সমবেদনা জানাচ্ছে। বাংলাদেশ সরকারের প্রতি এ জঘন্য অপরাধ তদন্ত ও দায়ীদের বিচারের মুখোমুখি করতে প্রচেষ্টা দ্বিগুণ করারও আহ্বান জানাচ্ছে। মতপ্রকাশ, ধর্ম বা বিশ্বাসের অধিকার যারা চর্চা করছেন, তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সরকারকে অবশ্যই সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ নিতে হবে।
বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ধর্মনিরপেক্ষতা, চিন্তার স্বাধীনতা, ধর্মীয় ও সাম্প্রদায়িক সহিষ্ণুতা এবং রাজনৈতিক স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতার পক্ষে প্রচারণা চালানোর কারণে ব্লগারদের ধর্মভ্রষ্ঠ ও ধর্ম অবমাননাকারী হিসেবে আখ্যা দিয়ে হামলা চালিয়েছে চরমপন্থিরা। হত্যার জন্য অন্য ব্লগারদের নাম সম্বলিত কথিত একটি হিটলিস্ট ইন্টারনেটে পাওয়া যাচ্ছে। যারা ব্লগারদের কাজ অনুবাদ করেন, তাদের নামও অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।
চেয়ারম্যান জর্জ বলেন, বাংলাদেশ একটি গুরুত্বপূর্ণ মোড়ে রয়েছে। ধর্মীয় ও সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা বাড়ছে। উদ্দীপ্ত চরমপন্থি গোষ্ঠীগুলো ধর্মীয় সম্প্রদায়ের সদস্য ও ধর্মনিরপেক্ষতার পক্ষে প্রচারণাকারীদের টার্গেট করছে। তাই বাংলাদেশ সরকারের নিষ্ক্রিয় হয়ে থাকা উচিত হবে না। তিনি বলেন, ইউএসসিআইআরএফ ধর্মীয় বৈষম্য নির্মূলে পদক্ষেপ নিতে সরকারকে আহ্বান জানাচ্ছে। পাশাপাশি ধর্মীয় ও সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা এবং ধর্মনিরপেক্ষ ব্লগার ও ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর সহিংসতা ও দায়মুক্তির পরিবেশ অবসানে পদক্ষেপ নিতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছে। পাশাপাশি ধর্মীয় ও সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা এবং ধর্মনিরপেক্ষ ব্লগার ও ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের ওপর সহিংসতা ও দায়মুক্তির পরিবেশ অবসানে পদক্ষেপ নিতে বাংলাদেশ সরকারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছে। চরমপন্থি গোষ্ঠীগুলোর হাতে খুন হওয়ার অত্যাসন্ন ঝুঁকিতে থাকা কয়েকজন বাংলাদেশি লেখককে আশ্রয় দিতে কমিশন মার্কিন সরকারের কাছে আহ্বান জানাচ্ছে।
বিবৃতিতে বলা হয়েছে, সামাজিক বৈষম্য, হয়রানি, ভয়ভীতি প্রদর্শন ও ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের বিরুদ্ধে সংঘটিত সহিংসতার কারণে বাংলাদেশকে ২০১৩ সাল থেকে ‘নজরদারিতে থাকা অন্য দেশগুলোর তালিকা’য় (আদার কান্ট্রিজ মনিটরড লিস্ট) রেখেছে ইউএসসিআইআরএফ। ২০০৫ সাল থেকে ২০০৮ সাল থেকে সংস্থাটির ‘ওয়াচ লিস্টে’ ছিল বাংলাদেশ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 13 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ