নোয়াখালীর সেনবাগে কাদিয়ানি-সুন্নি সংঘর্ষ, আহত ১০

প্রকাশিত: 2:07 AM, March 7, 2016

নোয়াখালীর সেনবাগে কাদিয়ানি-সুন্নি সংঘর্ষ, আহত ১০

নিউজ ডেস্ক :

নোয়াখালীর  সেনবাগ উপজেলার কাবিলপুর ইউনিয়নের ইয়ারপুর গ্রামে কাদিয়ানি সমর্থকদের মাহফিলকে কেন্দ্র করে সুন্নি ও কাদিয়ানিদের মধ্যে সংঘষের ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের অন্তত ১০জন আহত হয়েছে।
রবিবার রাত সাড়ে ৭টার দিকে উপজেলা ছমিরমুন্সির হাট বাজার সংলগ্ন ইয়ারপুর খুরশিদ আলমের বাড়ির সামনে এ ঘটনাটি ঘটে ।
আহতরা হলেন-রহমান, আবদুল কাদের, জুবায়ের হোসেন, মিজানুর রহমান ও কাশেমসহ ১০জন।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ছমির মুন্সিরহাট বাজারের শারমিন এন্টারপ্রাইজের মালিক (কাদিয়ানি সম্প্রদায় সমর্থক) খোরশেদ আলম তার ইয়ারপুর গ্রামের বাড়ির দরজায় ওয়াজ মাহফিলের আয়োজন করে। তারা মাইক ব্যাবহার নাজায়েজ বলে প্রচার করায় ওই এলাকার সুন্নি মুসলমান আলেমরা এর তীব্র প্রতিবাদ জানায়। ওই সময় তাদের মাহফিল বন্ধের আহ্বান জানান। কিন্তু তা অগ্রাহ্য করে করে চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন  এলাক থেকে তাদের মতাদশের্র লোকজনকে জড়ো করে মাহফিল শুরু করা হয়। পরে রাত ৭টার দিকে এলাকার সুন্নি মতাদর্শের কয়েক শত আলেম এবং জনসাধারণ  রিকশায় মাইক লাগিয়ে ওয়াজের প্যান্ডেল স্থলে পৌছলে চরম উত্তেজনা দেখা  দেয়। এসময় উভয় পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়। এতে কমপক্ষে ১০ জন আহত হয়।  পরে খবর পেয়ে সেনবাগ থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।
সেনবাগ থানার ওসি আবদুর রাজ্জাকের উপস্থিতিতে মাহফিলের আয়োজক খোরশেদ আলম তার ভুল স্বীকার করে উপস্থিত জনতার মাঝে তওবা পড়ে ওয়াজ মাহফিল বন্ধ করে দেয়। কিন্তু এর আগেই মাহফিলটি পণ্ড হয়ে যায়। রাত ৮টার দিকে পুলিশ কাদিয়ানি সম্প্রদায়ের  লোকজনকে পাহারা দিয়ে বিভিন্ন গন্তব্যে  পৌছে দেয়।
সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 27 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ