যশোর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বোমা ও হাতাহাতি, পুলিশের গুলি

প্রকাশিত: 8:20 AM, February 21, 2016

যশোর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বোমা ও হাতাহাতি, পুলিশের গুলি

zoniপ্রান্তডেস্ক:একুশের প্রথম প্রহরে যশোর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ফুল দেয়ার সময় হাতবোমা বিস্ফোরণ ও ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে। এতে রোববার প্রথম প্রহরের শ্রদ্ধাঞ্জলি অর্পণের আয়োজন প- হয়ে যায়। শহীদ বেদীতে আকস্মিক এ বিস্ফোরণে আতঙ্কিত হয়ে ছুটাছুটি শুরু করে শ্রদ্ধা জানাতে আসা নানা বয়সী মানুষ। এসময় ফাঁকা গুলি ও টিয়ার গ্যাস ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ। এ ঘটনার জন্য ছাত্রলীগের এক পক্ষকে দায়ী করা হচ্ছে। পুলিশ বলছে, সদর আসনের সংসদ সদস্য কাজী নাবিল আহমেদের একটি বিরোধী পক্ষ এ ঘটনার জন্য দায়ী। এদিকে জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক বলছেন, এমপির নেতৃত্বেই চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা বোমা হামলা চালিয়েছে। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, রাত ১২টা ১ মিনিটে যশোর সরকারি এমএম কলেজস্থ কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে প্রথম ফুল দেন সদর আসনের সংসদ সদস্য নাবিল। জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার ফুল দেয়ার পরপরই ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে ফুল দিতে বেদীতে যায় নেতাকর্মীরা। এসময় তারা হট্টগোল শুরু করলে পুলিশ থামানোর চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে শহীদ বেদীর উত্তরপাশে হাতবোমার বিস্ফোরণ ঘটে। একটি হাতবোমা শহীদ মিনারের সামনে বিস্ফোরিত হলে পুলিশ ফাঁকা গুলি চালানো শুরু করে। যশোরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার কেএম আরিফুল হক জানান, সংসদ সদস্য, জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার ফুল দিতে গেলে সংসদ সদস্যের বিরোধী একটি পক্ষ হট্টগোলের চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে তাদের নিজেদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয় এবং ৫/৬টি হাতবোমার বিষ্ফোরণ ঘটে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার জন্য কয়েক রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছোড়ে এবং টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপ করে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 18 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ