বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সংসদ সদস্যদের সিম নিবন্ধন শুরু

প্রকাশিত: 10:09 AM, February 16, 2016

বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সংসদ সদস্যদের সিম নিবন্ধন শুরু

index_116823প্রান্তডেস্ক:বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের সদস্যদের আঙুলের ছাপ দিয়ে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিবন্ধনের কার্যক্রম শুরু হয়েছে। আজ সোমবার জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। সংসদ ভবনে তিনি আঙুলের ছাপ দিয়ে তার সিম নিবন্ধন করেন। দেশের ১৩ কোটি সেলফোন গ্রাহকের মধ্যে গত তিন মাসে মাত্র এক কোটি গ্রাহক সিম নিবন্ধনের আবেদন করেছেন। এখনো ১২ কোটি গ্রাহক নিবন্ধনের বাইরে রয়েছেন। অথচ নিবন্ধন কার্যক্রম শেষ হওয়ার কথা রয়েছে আগামী এপ্রিলে। তাই জনগণকে উৎসাহিত করতে জনপ্রতিনিধিদের সিম-রিম নিবন্ধন কার্যক্রমের উদ্যোগ নেয়া হয়। সংসদ ভবেনে ছয়টি মোবাইল ফোন অপারেটরই তাদের ডিভাইস স্থাপন করেছে। সেখানে ৩৫০ জন সংসদ সদস্য পরিচয় নিশ্চিত করে তাদের সিম অথবা রিম নিবন্ধন করে নেবেন। আগামী কয়েক দিন এই কার্যক্রম চলবে। জাতীয় সংসদের মিডিয়া সেন্টারে এ কার্যক্রমের উদ্বোধনকালে শিরীন শারমিন বলেন, জাতীয় নিরাপত্তার স্বার্থে সিম-রিম নিবন্ধন প্রক্রিয়া গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। এর মধ্য দিয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নিরাপত্তা বিষয়ক কাজও এগিয়ে যাবে। অনিবন্ধিত সিম-রিমের অপব্যবহার আমাদের জীবনে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। অনেক সময় আমাদের বিব্রতকর অবস্থায়ও ফেলে দেয়। তিনি আরও বলেন, স্পিকার বলেন, সারাদেশে ব্যবহৃত প্রায় ১৩ কোটি সিমের পুনঃনিবন্ধন একটি বড় ধরনের কর্মকাণ্ড। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের একার পক্ষে এ বিশাল কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন করা সম্ভব হবে না। একটি আন্দোলনের মাধ্যমে এ কর্মকাণ্ডে সারাদেশের জনগণকে সম্পৃক্ত করতে হবে। উল্লেখ্য, গত ১ জানুয়ারি থেকে যেকোনো সেলফোন গ্রাহক স্বপ্রণোদিত হয়ে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে সিম নিবন্ধন করতে পারবেন বলে বিটিআরসি জানায়। এটা তিনটি পর্যায়ে সম্পন্ন হবে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 5 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ