‘পুলিশ ও প্রশাসনে রোগ ঢুকে গেছে’

প্রকাশিত: 9:33 AM, February 13, 2016

‘পুলিশ ও প্রশাসনে রোগ ঢুকে গেছে’

khপ্রান্তডেস্ক:পুলিশ ও প্রশাসনে রোগ ঢুকে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন। একইসঙ্গে পুলিশ কোন দলের বাহিনী হতে পারে না বলে মন্তব্য করেন তিনি। আজ সকালে রাজধানীর আরামবাগে গণফোরামের কেন্দ্রীয় কমিটির বর্ধিত সভায় তিনি এসব কথা বলেন। ড. কামাল হোসেন বলেন, পুলিশকে দলীয়ভাবে অপব্যবহার করা যাবে না। পুলিশ কোন দলের বাহিনী হতে পারে না। আপনারা গ্রামে গ্রামে গিয়ে এটা সবাইকে বোঝাবেন। পুলিশের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগের বিষয়ে প্রবীণ এই আইনজীবী বলেন, আজকে পুলিশের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে। পুলিশ তো আমাদের এই দেশেরই ছেলে। এই দেশের ছেলে এইভাবে মানসিকভাবে রুগ্ণ হবে? তাদের বিরুদ্ধে ওঠা অভিযোগ তদন্ত করে দোষী সাব্যস্ত করা হয়েছে। তাহলে এটা সত্য। তারা আমাদের দেশের ছেলে। পুলিশ আমাদের শত্রু না। তারা যেভাবে রুগ্ণ হচ্ছে, সেই রোগ থেকে তাদের মুক্ত করতে হবে। গণফোরাম সভাপতি বলেন, পুলিশ চাই, আইনের শাসনের জন্যই পুলিশ চাই। কিন্তু সেই পুলিশ এইভাবে মানুষকে ধরে বলবে এটা আমার দাবি, এটা মানতে হবে। তারা হাতেনাতে ধরা পড়েছে। এটা কিসের আলামত? রোগের আলামত। যদি বলি, পুলিশের দরকার নেই। এটা একদম না। পুলিশকে রোগমুক্ত করো। প্রশাসনকে রোগমুক্ত করো, দুর্নীতিমুক্ত করো। বিচার বিভাগকে স্বাধীনভাবে, নিরপেক্ষভাবে ভূমিকা রাখতে হবে। এই সংবিধান বিশেষজ্ঞ বলেন, সংবিধানে বলা আছে, জনগণ ক্ষমতার মালিক। মালিককে মালিকের ভূমিকা রাখতে হবে। অনেক সময় মালিকের ভূমিকা রাখতে কিছুটা ঝুঁকিও নিতে হয়। মানুষ শান্তি চায়, স্থিতিশীলতা চায়, সুশাসন চায়, আইনের শাসন চায়। স্বাধীন দেশে দলীয় সরকার, দলীয় দৃষ্টিভঙ্গিতে কাজ করবে—এটা কিন্তু সংবিধানপরিপন্থী। দলীয় সরকার থাকবে, কিন্তু তাতে সংবিধান মেনে ক্ষমতা পালন করতে হবে। জঙ্গিবাদ কোনো ধর্মের শিক্ষা হতে পারে না। যারা এগুলো করে, তাদের অসুস্থ বলেও মন্তব্য করেন বিশিষ্ট এই আইনজীবী। বর্ধিত সভায় গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসীনসহ দলটির কেন্দ্রীয় ও জেলা থেকে আসা নেতারা অংশ নেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 4 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ