চা বিক্রেতা হত্যা:চার পুলিশকে প্রত্যাহার

প্রকাশিত: 11:49 AM, February 4, 2016

চা বিক্রেতা হত্যা:চার পুলিশকে প্রত্যাহার

109524_untitled_111282প্রান্তডেস্ক:রাজধানীর মিরপুরে আগুনে পুড়িয়ে চা বিক্রেতা বাবুল মাতাব্বারকে (৪৫) হত্যার ঘটনায় ৪ পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহার করেছে ঢাকা মেট্রোপলিট পুলিশ (ডিএমপি)। প্রত্যাহৃত পুলিশ সদস্যরা হলেন, মিরপুর শাহআলী থানার এসআই নেয়াজ উদ্দিন মোল্লা, মমিনুর রহমান, এএসআই জগেন্দ্র ও কনস্টেবল জসিম উদ্দিন।
বৃহস্পতিবার বিকেল সোয়া ৫টার দিকে এ খবর নিশ্চিত করেছেন ডিএমপির গণমাধ্যম শাখার উপ পুলিশ কমিশনার (ডিসি) মারুফ হোসেন সরদার। তিনি জানিয়েছেন দায়িত্বে অবহেলার দায়ে ওই চার পুলিশ সদস্যকে দায়িত্ব থেকে প্রত্যাহার করে নেয়া হয়েছে।
চার পুলিশ সদস্যকে প্রত্যাহারের পাশাপাশি ঘটনা তদন্তে পুলিশের তরফ থেকে পৃথকভাবে দুটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ডিএমপির ডিসি (ডিসিপ্লিন) টুটুল চক্রবর্তীকে নিয়ে কেন্দ্রীয়ভাবে ১ সদস্য বিশিষ্ট একটি এবং মিরপুর বিভাগ থেকে দুই কর্মকর্তাকে নিয়ে অপর কমিটি গঠিত হয়েছে। এ কমিটির সদস্যরা হলেন মিরপুর জোনের অতিরিক্ত উপ পুলিশ কমিনার (এডিসি, ক্রাইম) মাসুদ আহমেদ ও সহকারী কমিশনার (এসি) মাহবুব হোসন।
এদিকে বাবুল মাতাব্বারকে পুড়িয়ে হত্যার ঘটনায় তার মেয়ে রোকসানা আক্তার বাদি বুধবার রাতেই একটি মামলা করেছেন। মামলায় পুলিশের সোর্সসহ ৭ জনকে আসামি করা হয়েছে।
পুলিশের দেয়া আগুনে দগ্ধ চা-বিক্রেতা বাবুল মাতাব্বার (৪৫) বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে মারা যান। তার শরীরের ৯৫ শতাংশই দগ্ধ হয়েছিল।
গতকাল বুধবার দেলোয়ার নামে এক পুলিশ সদস্য চাঁদা না পেয়ে ক্ষিপ্ত হয়ে জ্বলন্ত চুলায় লাঠি দিয়ে আঘাত করলে তেল ছিটকে দগ্ধ হন বাবুল।
স্থানীয়রা জানান, বুধবার রাত সাড়ে ৯টার দিকে রাজধানীর শাহআলী থানাধীন মিরপুর-১ বেড়িবাঁধ কিংশুক সমিতির গেটের সামনে এ ঘটনা ঘটে। পরে বাবুলের ছেলে তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 12 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ