পে-স্কেল নিয়ে নতুন নির্দেশনা

প্রকাশিত: 6:36 AM, January 28, 2016

পে-স্কেল নিয়ে নতুন নির্দেশনা

109524_untitled_111282প্রান্ত ডেস্ক:সরকারি চাকরিতে যাদের নতুন নিয়োগ হয়েছে ও পদোন্নতি পেয়েছেন, তাদের অনলাইনে বেতন নির্ধারণ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে।
এ ছাড়া যারা ২০১৫ সালের ১ জুলাই থেকে ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়ে টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড পেয়েছেন, তাদেরও অনলাইনে বেতন নির্ধারণ করতে হবে।
সম্প্রতি অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে এ-সংক্রান্ত একটি পরিপত্র জারি করা হয়েছে বলে অর্থ মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে।
সূত্র জানায়, জাতীয় বেতন স্কেল ২০১৫-এর আদেশ গেজেট আকারে প্রকাশের পর সব সরকারি চাকরিজীবীর জন্য বাধ্যতামূলক অনলাইনে বেতন নির্ধারণ (পে ফিক্সেশন) ব্যবস্থার প্রচলন করা হয়েছে। এর মাধ্যমে সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন ও অন্যান্য তথ্যসংবলিত একটি নির্ভুল ডাটাবেজ প্রস্তুত করা হচ্ছে।
এ ডাটাবেজ নিয়মিত আপডেট করার স্বার্থে ১ জুলাই ২০১৫ তারিখে অনলাইনে বেতন নির্ধারণের পর যেসব ক্ষেত্রে বিভিন্ন কারণে মূল বেতনের পরিবর্তন হবে, সেগুলোও বেতন নির্ধারণের জন্য প্রস্তুতকৃত ওয়েবসাইট ব্যবহার করে অনলাইনে হালনাগাদ করতে হবে।
অর্থ মন্ত্রণালয় থেকে জারি করা পরিপত্রে এ বিষয়ে চারটি নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।
প্রথম নির্দেশনায় নতুন নিয়োগের ক্ষেত্রে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালের ১ জুলাই থেকে বা তার পরবর্তী সময়ে সরকারি চাকরিতে নতুন নিয়োগ পাওয়া প্রত্যেককে বাধ্যতামূলকভাবে অনলাইনে বেতন নির্ধারণ করতে হবে। অনলাইনে বেতন নির্ধারণ ছাড়া নতুন নিয়োগপ্রাপ্ত কোনো চাকরিজীবীর বেতন ও ভাতাদি পরিশোধ করা যাবে না।
নির্দেশনায় পদোন্নতি সম্পর্কে বলা হয়েছে, ২০১৫ সালের ১ জুলাই বা তার পরবর্তী সময়ে পাওয়া সব সরকারি চাকরিজীবীর প্রত্যেককে পদোন্নতিজনিত কারণে বাধ্যতামূলকভাবে অনলাইনে বেতন নির্ধারণ করতে হবে। অনলাইনে বেতন নির্ধারণ ব্যতিরেকে কোনো চাকরিজীবীকে পদোন্নতিজনিত কারণে উচ্চতর গ্রেডে বেতন ও ভাতাদি পরিশোধ করা হবে না।
টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড সম্পর্কে নির্দেশনায় বলা হয়েছে, যেসব সরকারি চাকরিজীবী ২০১৫ সালের ১ জুলাই থেকে ১৪ ডিসেম্বর সময়ে টাইম স্কেল বা সিলেকশন গ্রেড পেয়েছেন, তাদের সবাইকে প্রতিটি প্রাপ্ত সুবিধার জন্য আলাদা আলাদা বাধ্যতামূলকভাবে অনলাইনে বেতন নির্ধারণ করতে হবে।
কোনো চাকরিজীবী এ সময়ের মধ্যে একাধিক সুবিধা পেয়ে থাকলে যে সুবিধা তিনি আগে পেয়েছেন, প্রথমে তার জন্য একবার বেতন নির্ধারণ করতে হবে। এরপর পরবর্তী সুবিধার জন্য পুনরায় বেতন নির্ধারণ করতে হবে। তা না হলে এ সুবিধাপ্রাপ্ত কাউকে উচ্চতর গ্রেডে বেতন ও ভাতা পরিশোধ করা হবে না।
পরিপত্রে আরো বলা হয়েছে, উপযুক্ত ক্ষেত্র ছাড়া সময়ে সময়ে জারিকৃত সরকারি আদেশ বা অন্য কোনো কারণে বেতন গ্রেড বা মূল বেতন পুনর্নির্ধারণের ক্ষেত্রে একই পদ্ধতি অনুসরণ করে বাধ্যতামূলকভাবে অনলাইনে বেতন নির্ধারণ করতে হবে।
এরই মধ্যে বেতন নির্ধারণের জন্য একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা হলেও সেটি এখনো চালু করা হয়নি। খুব শিগগির সবার ব্যবহারের জন্য এটি চালু করা হবে। ওয়েবসাইটটি চালু না হওয়া পর্যন্ত নতুন নিয়োগ ও পদোন্নতি এবং ২০১৫ সালের ১ জুলাই থেকে ১৪ ডিসেম্বর সময়ে প্রাপ্ত টাইম স্কেল, সিলেকশন গ্রেড বা বার্ষিক বেতন বৃদ্ধির কারণে উচ্চতর গ্রেডে বা একই গ্রেডে উচ্চতর ধাপে বেতন ও ভাতা পরিশোধ করা স্থগিত থাকবে।
তবে, অনলাইনে বেতন নির্ধারণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়ে গেলে, সকলে প্রাপ্য অতিরিক্ত বেতন যথানিয়মে বকেয়া হিসেবে প্রাপ্য হবেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 11 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ