ঢাকায় আসছে ইইউ প্রতিনিধি দল

প্রকাশিত: 6:20 AM, January 26, 2016

ঢাকায় আসছে ইইউ প্রতিনিধি দল

109524_untitled_111282প্রান্ত ডেস্ক:বাংলাদেশের চলমান রাজনীতি, মানবাধিকার ও মত প্রকাশের পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের এক প্রতিনিধি দল ফেব্রুয়ারিতে ঢাকায় আসছে।
তিন দিনের সফরের সময় ইউরোপীয় পার্লামেন্টের সদস্যরা জাতীয় সংসদের স্পিকার, বিরোধী দলের নেতাদের পাশাপাশি নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলবেন।
বেলজিয়ামের একটি কূটনৈতিক সূত্র গত শনিবার জানিয়েছে, সম্প্রতি ইউরোপীয় পার্লামেন্টের দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্ক বিষয়ক প্রতিনিধি দল বা ডিএসএএসের নিয়মিত বৈঠকে বাংলাদেশে সফরের বিষয়টি জানান প্রতিনিধি দলের প্রধান জিন ল্যাম্বার্ট। তাঁর নেতৃত্বে তিন সদস্যের প্রতিনিধি দলটি ১০ থেকে ১২ ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশ সফর করবেন।
জিন ল্যাম্বার্টের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের ওই প্রতিনিধি দলের অন্য দুই সদস্য হচ্ছেন ইউরোপীয় পার্লামেন্টের কনজারভেটিভসও রিফর্মিষ্ট গ্রুপের সদস্য সাজ্জাদ করিম ও প্রগ্রেসিভ অ্যালায়েন্স অফ সোশ্যালিস্ট অ্যান্ড ডেমোক্র্যাটসের সদস্য রিচার্ড হাউয়িট।
২০১৪ সালের পর ইউরোপীয় পার্লামেন্টের কোন প্রতিনিধি দল বাংলাদেশে আসছে। ৫ জানুয়ারি পরবর্তী রাজনৈতিক পরিস্থিতি ও রানা প্লাজা ধসের পর বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পের পরিস্থিতি কেমন তা দেখতে জিন ল্যাম্বার্টের নেতৃত্বে চার সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল ২০১৪ সালের মার্চে ঢাকা সফর করেছিল। এ ছাড়া গত নভেম্বরে ইউরোপীয় পার্লামেন্টে বাংলাদেশ নিয়ে একটি প্রস্তাব গৃহীত হওয়ার পর এ সফরটি হচ্ছে। ওই প্রস্তাবে বাংলাদেশে মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিয়ে উদ্বেগ জানায় ইউরোপীয় পার্লামেন্ট।
বেলজিয়ামের কূটনৈতিক সূত্রে জানা গেছে, এবারের সফরের সময় ইউরোপীয় পার্লামেন্টের প্রতিনিধি দলটি জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরিন শারমীন চৌধুরী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী এএইচ মাহমুদ আলীসহ একাধিক জ্যেষ্ঠ মন্ত্রী, বিরোধী দলের নেতা এবং নাগরিক সমাজের প্রতিনিধিদের সঙ্গে কথা বলবেন।
ব্রাসেলসের একটি কূটনৈতিক সূত্র জানায়, গত ১৪ জানুয়ারি ইউরোপীয় পার্লামেন্টের ডিএসএএসের নিয়মিত বৈঠকে বাংলাদেশের প্রসঙ্গ এলে পার্লামেন্টের গত নভেম্বরের প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা হয়।
গত বছরের ২৬ নভেম্বর ইউরোপীয় পার্লামেন্ট এক প্রস্তাবে বাংলাদেশে মত প্রকাশের স্বাধীনতা নিয়ে উদ্বেগ জানিয়েছে। এই পরিস্থিতিতে বৈঠকে জিন ল্যাম্বার্ট ব্লগারদের হত্যার পাশাপাশি সাংবাদিকদের ওপর হামলায় উদ্বেগ জানান।
ইউরোপীয় ইউনিয়নের বৈদেশিক সম্পর্ক বিভাগের এক কর্মকর্তা বাংলাদেশের আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ জানান।
ওই কর্মকর্তা মন্তব্য করেন, কয়েকটি হত্যাকাণ্ড ও সহিংস উগ্রপন্থার উত্থানের মধ্য দিয়ে ২০১৫ সালে বাংলাদেশে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। তবে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপির অংশগ্রহণ ইতিবাচক বলে মন্তব্য করেন জিন ল্যাম্বার্ট। তিনি বৈঠকে জানান, এ বছর অভিবাসন নিয়ে বাংলাদেশের সঙ্গে একটি সমন্বিত সংলাপ আয়োজন ইউরোপীয় ইউনিয়নের অগ্রাধিকারের তালিকায় আছে।
ওই আলোচনায় ইউরোপীয় ইউনিয়নের বাণিজ্য দপ্তরের প্রতিনিধি ঢাকায় অনুষ্ঠেয় সাসটেইনেবিলিটি কমপ্যাক্টের আসন্ন আলোচনার প্রসঙ্গ টানেন।
এ সময় তিনি জানান, কমপ্যাক্টের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী বাংলাদেশের তৈরি পোশাক শিল্পের কাজের পরিবেশে অনেক অগ্রগতি হয়েছে। তবে শ্রম আইনের পাশাপাশি অনৈতিক শ্রম চর্চার মত বিষয়গুলো আরও পর্যালোচনা দরকার।
এ ছাড়া রপ্তানি প্রক্রিয়াজাতকরণ এলাকায় ট্রেড ইউনিয়ন চালু না হওয়ার বিষয়টিকেও বিবেচনায় নিতে হবে। এ সময় জিন ল্যাম্বার্ট সাসটেইনেবিলিটি কমপ্যাক্টের আওতায় বাংলাদেশের নেওয়া পদক্ষেপের প্রশংসা করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 12 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ