সরকারের সায়, খালেদার ‘রাষ্ট্রদ্রোহ’ মামলা যাচ্ছে আদালতে

প্রকাশিত: 10:16 AM, January 24, 2016

সরকারের সায়, খালেদার ‘রাষ্ট্রদ্রোহ’ মামলা যাচ্ছে আদালতে

Khaledaপ্রান্ত ডেস্ক:বাংলাদেশের স্বাধীনতাযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা নিয়ে মন্তব্যের কারণে খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা করার এক আবেদনে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সায় দিয়েছে বলে জানিয়েছেন মন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল।
রোববার চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনের (এফডিসি) এক অনুষ্ঠান শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, “এ সংক্রান্ত একটি চিঠি আমাদের কাছে এসেছিল। আমরা একটা গাইডলাইন দিয়েছি। এ বিষয়ে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”
মামলা হলে খালেদা জিয়াকে গ্রেপ্তার করা হবে কি না- এমন প্রশ্নে “তার বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হবে” বলেই তড়িঘড়ি চলে যান মন্ত্রী।
অভিযোগকারী আইনজীবী মোমতাজ উদ্দিন আহমদ মেহেদী বলেছেন, তার আর্জি আমলে নেওয়ার জন্য সোমবারই তিনি ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে আবেদন করতে পারেন।
গত ২১ ডিসেম্বর রাজধানীতে একটি আলোচনা সভায় খালেদা জিয়া মুক্তিযুদ্ধে শহীদের সংখ্যা নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে বলেন, “আজকে বলা হয় এত লক্ষ লোক শহীদ হয়েছেন। এটা নিয়েও অনেক বিতর্ক আছে যে আসলে কত লক্ষ লোক মুক্তিযুদ্ধে শহীদ হয়েছেন। নানা বই-কিতাবে নানা রকম তথ্য আছে।”
ওই বক্তব্যে ‘দেশদ্রোহী’ মনোভাবের পরিচয় পাওয়া যাচ্ছে অভিযোগ করে গত ২৩ ডিসেম্বর তা প্রত্যাহার করতে উকিল নোটিশ পাঠান সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতির সাবেক সম্পাদক মোমতাজ উদ্দিন মেহেদী, যিনি আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য।
ওই নোটিসে খালেদাকে জাতির কাছে ‘নিঃশর্ত ক্ষমা’ চেয়ে সাত দিনের মধ্যে বক্তব্য প্রত্যাহার করে নিতে বলা হয়।
নোটিসের জবাব না পেয়ে গত সপ্তাহে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে মামলা দায়েরের অনুমোদন চেয়ে আবেদন করেন মেহেদী। এর ধারাবাহিকতায় গত ২১ জানুয়ারি অনুমোদন মেলে।
রোববার তিনি বলেন, “আমি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে একটি লিখিত আবেদন করেছিলাম ফৌজদারি কার্যবিধির ১৯৬ ধারায়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলা দায়েরের অনুমতি দিয়েছে।”
সোমবার ফৌজদারি কার্যবিধির ১২৩(ক), ১২৪(ক), ৫০৫ ধারার খালেদার ‘অপরাধ’ আমলে নেওয়ার জন্য মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে আবেদন করবেন বলে জানান তিনি।
খালেদার ওই বক্তব্য নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া হলেও বিএনপি নেতারা তাদের চেয়ারপারসনের বক্তব্যের পক্ষে যুক্তি দিয়ে যাচ্ছেন।
খালেদার উপদেষ্টা খন্দকার মাহবুব হোসেন রোববারও বলেছেন, “আমি মনে করি এটা তার অত্যন্ত সময়োপযোগী বক্তব্য। দীর্ঘ ৪২ বছর ধরে আমরা শুধু মুখের কথা বলি- ৩০ লাখ শহীদ হয়েছেন, কিন্তু তাদের সঠিক ঠিকানা-তথ্য আমাদের কাছে নাই। এটি জাতির জন্য দুর্ভাগ্য।”
খালেদার ওই বক্তব্য রাষ্ট্রদ্রোহ আইনের সংজ্ঞায় পড়ে না বলেও তিনি দাবি করেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 11 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ