১৯ জেলায় ৩৩ মেয়র পদপ্রার্থীর ভোট বর্জন

প্রকাশিত: 11:37 AM, December 30, 2015

১৯ জেলায় ৩৩ মেয়র পদপ্রার্থীর ভোট বর্জন

47019প্রান্ত ডেস্ক:হামলা, ধাওয়া-পাল্টাধাওয়া, অবৈধভাবে ব্যালট পেপারে সিল মারাসহ বিক্ষিপ্ত কিছু ঘটনার মধ্য দিয়ে সারা দেশে শেষ হয়েছে দলীয় প্রতীকে পৌরসভা নির্বাচন। ভোটে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ এনে ১৯ জেলায় ৩৩ জন মেয়র পদপ্রার্থী নির্বাচন থেকে নিজেদের সরিয়ে নিয়েছেন।
ময়মনসিংহ : ভালুকা পৌরসভায় কারচুপির অভিযোগ এনে সংবাদ সম্মেলন করে নির্বাচন বর্জন করেছেন বিএনপির প্রার্থী হাতেম আলী খান ও স্বতন্ত্র প্রার্থী আলহাজ মফিজ উদ্দিন সরকার।
রাজবাড়ী : পাংশা পৌরসভায় বিভিন্ন কেন্দ্রে ব্যাপক অনিয়ম, কারচুপি ও ব্যালটে জোর করে সিল মারার অভিযোগ এনে ভোট বর্জন করেছেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী চাঁদ আলী খান।
চাঁদপুর : নানা অনিয়ম-কারচুপির অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জন করেছেন চাঁদপুরের কচুয়া পৌরসভার আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আহসান হাবিব প্রাঞ্জল।
নড়াইল : নির্বাচনে অনিয়মের অভিযোগ এনে নিজেকে সরিয়ে নিয়েছেন নড়াইলের কালিয়া পৌরসভার বিএনপির মেয়র পদপ্রার্থী এস এম ওয়াহিদুজ্জামান মিলু। আর আওয়ামী লীগের প্রার্থী ওয়াহিদুজ্জামান হীরাও ভোট বর্জন করেছেন। এ ছাড়া নড়াইল পৌরসভায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সোহরাব হোসেন বিশ্বাস ভোট বর্জন করেছেন।
জামালপুর : সদর পৌরসভায় জাতীয় পার্টির (জাপা) প্রার্থী হাফিজুর রহমান বাদশা ভোট কারচুপির অভিযোগ এনে নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন। দেওয়ানগঞ্জ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী নুরুন্নবী অপু ভোট বর্জন করেছেন।
নরসিংদী : নরসিংদী পৌরসভায় ভোট বর্জন করেছেন বিএনপির প্রার্থী সাইফুল ইসলাম সোহেল ও স্বতন্ত্র প্রার্থী এস এম কাইয়ুম ।
লক্ষ্মীপুর : লক্ষ্মীপুরের রায়পুর পৌরসভায় বিএনপির প্রার্থী এ বি এম জিলানী ভোট বর্জন করেছেন। রামগতি পৌরসভায় বিএনপির প্রার্থী শাহেদ আলী পটু ও রামগঞ্জ পৌরসভায় বিএনপির প্রার্থী রোমান হোসেন পাটোয়ারী ভোট বর্জন করেছেন।
বরগুনা : সদর পৌরসভায় ভোট বর্জন করেছেন আওয়ামী লীগের প্রার্থী কামরুল আহসান।
মুন্সীগঞ্জ : মুন্সীগঞ্জ পৌরসভায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী রেজাউল ইসলাম সংগ্রাম ভোট বর্জন করেছেন।
সিরাজগঞ্জ : শাহজাদপুরে বিএনপির প্রার্থী নজরুল ইসলাম নির্বাচন বর্জন করেছেন।
ঝিনাইদহ : হরিণাকুণ্ডু পৌরসভায় বিএনপির মেয়র প্রার্থী জিন্নাতুল হক শেষ মুহূর্তে ভোট বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন।
পিরোজপুর : স্বরূপকাঠিতে বিএনপির প্রার্থী শফিকুল ইসলাম ভোট বর্জন করেছেন।
নারায়ণগঞ্জ : তারাব পৌরসভায় বিএনপির প্রার্থী নাসির উদ্দিন নির্বাচন বর্জন করেছেন।
মাগুরা : মাগুরা পৌরসভায় বিএনপির প্রার্থী ইকবাল আক্তার খান কাফুর ভোট বর্জন করেছেন।
পটুয়াখালী : পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় বিএনপির প্রার্থী হাজি হুমায়ুন শিকদার, কুয়াকাটায় জাতীয় পার্টির (জাপা) আনোয়ার হোসেন হাওলাদার ভোট বর্জন করেছেন। সংবাদ সম্মেলন করে দুজনই পুনর্র্নিবাচন চেয়েছেন।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া : আখাউড়া পৌরসভায় বিএনপির প্রার্থী মন্তাজ মিয়া, স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. সালাউদ্দিন আল হোসেন চৌধুরী, সৈয়দ মশিউর রহমান বাবুল ও সোহেল ভূঁইয়া ভোট বর্জন করেছেন।
কিশোরগঞ্জ : ভৈরব পৌরসভায় বিএনপির প্রার্থী হাজি মো. শাহীন ও বাজিতপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী শওকত আকবর ভোট বর্জন করেছেন।
টাঙ্গাইল : মধুপুরে বিএনপির প্রার্থী সরকার শহীদুল ইসলাম ভোট বর্জন করেছেন।
জয়পুরহাট : কালাই পৌরসভায় বিএনপির প্রার্থী সাজ্জাদুর রহমান সোহেল, বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী আনিছুর রহমান তালুকদার ও জাতীয় পার্টির প্রার্থী প্রভাষক আমিনুল ইসলাম ভোট বর্জন করেছেন।
দেশের ৩২৩টি পৌরসভার মধ্যে ভোট হয়েছে ২৩৪টি পৌরসভায়। ২৩৪ টি মেয়র পদ ছাড়াও দুই হাজার ১৯৩টি সাধারণ কাউন্সিলর ও ৭৩১টি সংরক্ষিত পদে প্রার্থীরা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেছেন।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 12 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ