সিঙ্গাপুর আটক ১৪বাংলাদেশী জঙ্গিকে রিমান্ড শেষে কারাগারে প্রেরন

প্রকাশিত: 11:32 AM, December 27, 2015

প্রান্ত ডেস্ক:সিঙ্গাপুরে গ্রেফতারকৃত ১৪ বাংলাদেশী জঙ্গিকে সন্ত্রাসবিরোধী আইনের মামলায় রোববার কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতের বিচারক স্নিগ্ধা রানী চক্রবর্তী এ আদেশ দেন।
মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) পরিদর্শক মো. মোস্তফা আনোয়ার রিমান্ড শেষে জঙ্গি সন্দেহে গ্রেফতারকৃত এই ১৪জনকে আদালতে হাজির করে প্রতিবেদন দাখিল করেন। আদালত তাঁদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।
এর আগে ২২ ডিসেম্বর ১৪জনের চার দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। এর আগের দিন ২১ডিসেম্বর রাজধানীর উত্তরা এলাকা থেকে তাঁদের আটক করা হয়।
আটককৃতরা হলেন, টাঙ্গাইলের আমিনুর রহমান (৩১), আবদুল আলীম (৩৩) ও শাহ আলম (২৮), কুমিল্লার নুরুল আমিন (২৬), গোলাম জিলানী (২৬) ও মাহমুদুল হাসান (৩০), ব্রাহ্মণবাড়িয়ার জাফর ইকবাল (২৭), ঝিনাইদহের আকরাম হোসেন (২৭), চুয়াডাঙ্গার আবদুল আলী (৪০), ঢাকার সাইফুল ইসলাম (৩৬), পাবনার আশরাফ আলী (২৭), কুড়িগ্রামের আলম মাহবুব (৩৪), চাঁপাইনবাবগঞ্জের ডলার পারভেজ (৩৫) ও মুন্সিগঞ্জের মোহাম্মদ জসিম (৩৩)। এরপর এদেরকে সন্ত্রাসবিরোধী আইনে করা এক মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়।
রিমান্ডের আবেদনে পুলিশ বলেছে, গ্রেফতারকৃত এই ১৪ আসামি সিঙ্গাপুরে কাজ করতেন। সেখানে তাঁদের নিজেদের মধ্যে পরিচয় হয়। সেখানেও তাঁরা জঙ্গি কার্যক্রম করতেন বলে সিঙ্গাপুর পুলিশ তাঁদের আটক করে দেশে ফেরত পাঠান। দেশে এসেও তাঁরা আবার সংগঠিত হয়ে জঙ্গি কার্যক্রম শুরুকরেন।
উত্তরা পূর্ব থানায় দায়ের করা এই মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, আসামিরা সিঙ্গাপুরের মোস্তফা মার্কেটের কাছে অ্যাঙ্গোলিয়া নামের মসজিদে একত্র হয়ে বাংলাদেশে জঙ্গি কার্যক্রম পরিচালনার উদ্দেশ্যে সদস্য ও অর্থ সংগ্রহসহ বিভিন্ন সন্ত্রাসী কার্যক্রম পরিচালনা করার বিষয়ে আলোচনা করতেন। ওই মসজিদে প্রত্যেক রোববার সন্ধ্যায় একত্র হয়ে জিহাদি বক্তব্য, বয়ান ও জিহাদি ভিডিও প্রদর্শন করতেন তাঁরা।
এরপর সিঙ্গাপুর পুলিশের কাছে তাঁদের এই জঙ্গি কার্যক্রমের বিষয়টি প্রকাশ পাওয়ার পর তাঁদের আটক করে কারাগারে রাখা হয়।
এরপর গত সিঙ্গাপুরের একটি বিষেশ বিমানযোগে ২৫জনকে বাংলাদেশের হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।
এরপর তাদেরকে গোয়েন্দা সংস্থার সদস্যরা আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদ শেষে গোয়েন্দা পুলিশের কাছে সোপর্দ করে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 13 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ