রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী, মুক্তিযোদ্ধা নেতৃবৃন্দের বিবৃতি গ্যাস সংযোগ বন্ধের বেআইনী মৌখিক বায়বীয় আদেশ প্রত্যাহার করে সিলেট বিভাগের সর্বত্র গ্যাস সংযোগ চালু করতে হবে

প্রকাশিত: 11:30 AM, December 21, 2015

রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী, মুক্তিযোদ্ধা নেতৃবৃন্দের বিবৃতি গ্যাস সংযোগ বন্ধের বেআইনী মৌখিক বায়বীয় আদেশ প্রত্যাহার করে সিলেট বিভাগের সর্বত্র গ্যাস সংযোগ চালু করতে হবে

police1450376982স্টাফ রিপোর্টার:জালালাবাদ গ্যাস ট্রান্সমিশন এন্ড ডিষ্ট্রিবিউশন সিষ্টেম লি: এর অধীনস্থ সিলেট বিভাগে সর্বত্র সকল আবাসিক / অনাবাসিক গ্যাস সংযোগ সম্প্রতি সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের মৌখিক নির্দেশে বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। সম্পুর্ন বেআইনী ভাবে গ্যাস সংযোগ বন্ধ করার কারনে সিলেট বিভাগে এক কোটি মানুষের জনজীবনে দূর্ভোগ ভোগান্তি চরম আকার ধারন করেছে। জনস্বার্থ বিরোধী এমনতর সিদ্ধান্ত গ্রহনের কারনে একদিকে দেশের উন্নয়নকামী সরকার যেমন কোটি কোটি টাকা রাজস্ব প্রাপ্তি থেকে বঞ্চিত হচ্ছে অন্যদিকে অসৎ অশুভ লুটেরা চক্র দেশ, জাতি ও জনগনের দূর্ভোগ ভোগান্তি বাড়িয়ে হাজার হাজার কোটি টাকা লুটপাট করছে। সরকার মন্ত্রনালয় ও বিভিন্ন অধিদপ্তর সংশ্লিষ্ট শীর্ষস্থানীয় কতিপয় অসৎ ব্যক্তিদের সমন্বয়ে গড়ে উঠা লুটেরা সিন্ডিকেট মৌখিকভাবে নানান মিথ্যাচার ছড়িয়ে, ভিত্তিহীন ভূয়া তথ্য উপাত্ত প্রচার করে দেশ ও জনগণের স্বার্থকে জলাঞ্জলি দিয়ে গ্যাস সংযোগ বন্ধ করে তাদের অসৎ উদ্দেশ্য চরিতার্থ করে চলেছে। সরকারের অভ্যন্তরে ঘাপটি মেরে বসে থাকা অপ্রতিরোধ্য শক্তির অধিকারী অপশক্তি সরকার ও জনমনে ধু¤্রজাল সৃষ্টি করে জনদূর্ভোগ বাড়িয়ে চলেছে। লুটেরা চক্রের এহেন দুর্দমনীয় অপরাধযঞ্জ কোন অবস্থাতেই মেনে নেয়া যায় না। মৌখিক নির্দেশ নামীয় গ্যাস সংযোগ বন্ধের বায়বীয় আদেশ সিলেট বিভাগের শান্তি প্রিয় এক কোটি জনগণ কখনোই মেনে নেবেনা। দেশের একমাত্র লাভজনক প্রতিষ্ঠান জালালাবাদ গ্যাসের আওতাধীন সিলেট বিভাগে বায়বীয় আদেশের বলি গ্যাস সংযোগ বন্ধের বায়বীয় নির্দেশ অবিলম্বে প্রত্যাহার করতেই হবে। সংশ্লিষ্ট এলাকাসমূহে পূর্বের ন্যায় বিধিসম্মতভাবে চলমান গ্যাস সংযোগ প্রক্রিয়া অব্যাহত রেখে পূর্বে প্রদত্ত সকল অনুমতি, সম্মতি, প্রদানকৃত সংযোগসমূহ জরুরী ভিত্তিতে প্রদানপূর্বক রাষ্ট্রীয় কোষাগারে কোটি কোটি টাকা রাজস্ব প্রদানের সকল বাধা দুর করতেই হবে। অন্যথায় সংশ্লিষ্টদের দেশবিরোধী, জনস্বার্থ বিরোধী লুটেরা অপকর্মের অপরাধী হিসেবে জনগণের আদালতে জবাবদিহি করতে হবে। দেশদ্রোহী হিসেবে আইনের আওতায় কঠিন শাস্তি ভোগ করতে হবে।
সিলেটের বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, পেশাজীবি, সাংস্কৃতিক, মুক্তিযোদ্ধা সংগঠনের জাতীয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ এক যৌথ বিবৃতিতে এসব কথা বলেন।
নেতৃবৃন্দ বিবৃতিতে বলেন, দীর্ঘ কয়েক যুগ যাবত এদেশের তেল-গ্যাস-বিদ্যুৎ-বন্দর সহ সকল প্রাকৃতিক খনিজ সম্পদ ধ্বংস ও লুটপাটের সঙ্গে আন্তর্জাতিক লুটেরা গোষ্ঠী ও তাদের তাবেদার এদেশের কতিপয় কুলাঙ্গার ওতপ্রোতভাবে তাদের নানান অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। এসবেরই অংশ হিসেবে সরকারের অভ্যন্তরে সুকৌশলে তাদের অবস্থান সুদৃঢ় করে জনদূর্ভোগ বাড়িয়ে নিরাপদে তাদের লুটপাট ও ধ্বংসলীলা চালিয়ে যাচ্ছে। সিলেট বিভাগ বা দেশের কোথাও গ্যাস সংযোগ প্রদানে কোন কারন না থাকলেও তারা তাদের লুটপাট ও এদেশের সম্পদ নিরাপদ ও নিশ্চিন্তে ধ্বংস করতে নানান অপকৌশলের আশ্রয় নেয়। চিহিৃত ঐ কালোশক্তি তাদের অপকৌশলের অংশ হিসেবেই মিথ্যাচার ও ভূয়া তথ্য – উপাত্ত প্রচার করে সরকার ও জনমনে ভয় ও বিভ্রান্তি সৃষ্টি করে। লুটেরা গোষ্ঠীর সকল অপতৎপরতার বিরুদ্ধে সর্বস্তরের জনগনের ঐক্যবদ্ধ ভাবে প্রতিবাদ ও প্রতিরোধ গড়ে তোলার কোন বিকল্প নেই। বিগত প্রায় চার দশক যাবত সিলেট বিভাগে জনগণ এসব ঘৃন্য লুটেরা গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে আপোষহীন আন্দোলন সংগ্রামের মাধ্যমেই বিজয় ছিনিয়ে এনেছে। এবারও লুটেরা গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে গণপ্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। বিবৃতিতে নেতৃবৃন্দ সিলেট বিভাগের সর্বস্তরের জনগণকে গ্যাস সংযোগ বন্ধের প্রতিবাদে ঐক্যবদ্ধ দুর্বার আন্দোলন গড়ে তোলার আহ্বান জানান এবং সরকার ও সরকারের সংশ্লিষ্ট সকল উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবিলম্বে গ্যাস সংযোগ বন্ধ করার সাথে জড়িতদের চিহিৃত করে জনদূর্ভোগ সৃষ্টি ও দেশের কোটি কোটি টাকা রাজস্ব প্রাপ্তি বন্ধ করার সাথে জড়িত অপরাধীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের দাবি জানান। এবং কালক্ষেপন না করে জরুরী ভিত্তিতে গ্যাস সংযোগ অব্যাহত রাখার সকল কার্যক্রম চালু করার অনুরোধ ও আহ্বান জানান।
বিবৃতিদাতা নেতৃবৃন্দ হলেন যথাক্রমে- সর্বজনাব গণতন্ত্রী পার্টির কেন্দ্রীয় ও জেলা সভাপতি ব্যারিষ্টার আরশ আলী, ন্যাপ কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য ও জেলা সভাপতি সৈয়দ আব্দুল হান্নান, সাম্যবাদী দলের কেন্দ্রীয় পলিট ব্যুরো সদস্য ও জেলা সাধারন সম্পাদক কমরেড ধীরেন সিংহ, প্রবীন রাজনীতিবিদ ও আইনজীবী, সিপিবি নেতা কমরেড বেদানন্দ ভট্টাচার্য, সাম্যবাদী দলের কেন্দ্রীয় নেতা কমরেড আফরুজ আলী, জাসদের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারন সম্পাদক লোকমান আহমদ, জেলা জাসদ সভাপতি আলহাজ্ব কলন্দর আলী, সিলেট জেলা বারের সাবেক সভাপতি এডভোকেট এমাদ উল্লাহ শহীদুল ইসলাম, ওয়ার্কার্স পার্টির কেন্দ্রীয় সদস্য ও জেলা সাধারন সম্পাদক কমরেড সিকন্দর আলী, গণতন্ত্রী পার্টির কেন্দ্রীয় নেতা ও জেলা সাধারন সম্পাদক মোঃ আরিফ মিয়া, মহানগর ন্যাপ সভাপতি ইসহাক আলী, মহনগর গণফোরাম সভাপতি এডভোকেট আনসার খান, বিশিষ্ট মুক্তিযোদ্ধা ও প্রবীন রাজনীতিবিদ এডভোকেট মুজিবুর রহমান চৌধুরী, জাসদ ও নারী জোট কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য শামীম আখতার, গণফোরাম জেলা সভাপতি এডভোকেট নিলেন্দু দেব, ওর্য়াকার্স পার্টির জেলা সভাপতি কমরেড আবুল হোসেন, সিপিবি জেলা সভাপতি (ভারপ্রাপ্ত) হাবিবুল ইসলাম খোকা, বিএমএ কেন্দ্রীয় সাবেক সহ-সভাপতি ডা: ময়নুল ইসলাম, ন্যাপ নেতা আব্দুল মতিন, বাসদ (মা) জেলা আহ্বায়ক ও কেন্দ্রীয় নেতা কমরেড উজ্বল রায়, সিলেট জেলা বাসদ সমন্বয়ক কমরেড আবু জাফর, জেলা সুজন সভাপতি ফারুক মাহমুদ চৌধুরী, জেলা সিপিবি সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট আনোয়ার হোসেন সুমন, জেলা জাসদ সম্পাদক (ভারপ্রাপ্ত) কে , এ, কিবরিয়া চৌধুরী, সাংস্কৃতিক ও নাট্যব্যক্তিত্ব মিসফাক আহমদ চৌধুরী মিশু, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোট সিলেট জেলা সম্পাদক সামসুল ইসলাম সেলিম, সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সিলেট জেলা সম্পাদক রজত কান্তি গুপ্ত, সাংস্কৃতিক ও নাট্য ব্যক্তিত্ব সামসুল বাসিত শেরো, বিভাস শ্যাম যাদন, জাসদ নেতা সোলেমান আহমদ, আলাউদ্দিন আহমদ মুক্তা, জেলা বাসদ (মা) নেতা এডভোকেট হুমায়ুন রশীদ শোয়েব, জেলা বাসদ নেতা প্রণব জ্যোতি পাল, সমাজসেবী নজমুল হক, নারী নেত্রী কমরেড ইন্দ্রানী সেন, মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সিলেট মহানগর কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা ভবতোষ রায় বর্মন রানা, গনতন্ত্রী পার্টি নেতা প্রকৌশলী আইয়ুব আলী, সমাজসেবী নিজাম উদ্দিন, সাংবাদিক মিলু কাশেম, এডভোকেট গোলাম রাজ্জাক চৌধুরী, বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালিক, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: সিরাজ উদ্দিন, সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্ট মগানগর সভাপতি পাপ্পু চন্দ, জাতীয় শিশু-কিশোর জোট সিলেট’র সমন্বয়ক তাহমিদ আজওয়ার, ছাত্রলীগ নেতা তারেক আহমদ প্রমূখ।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 9 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ