সারাদেশে ক্ষমতাসীনদের হামলা-ভাঙচুর ও আচরণবিধি লঙ্ঘনের হিড়িক: অসহায় ইসি

প্রকাশিত: 7:28 AM, December 21, 2015

সারাদেশে ক্ষমতাসীনদের হামলা-ভাঙচুর ও আচরণবিধি লঙ্ঘনের হিড়িক: অসহায় ইসি

police1450376982প্রান্ত ডেস্ক:থামছে না ক্ষমতাসীনদের আচরণবিধি লঙ্ঘন ও হামলা-ভাঙচুরের ঘটনা। সারাদেশে প্রতিদিনই প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের প্রচারণা, গণসংযোগ, উঠান বৈঠক, বাড়ি-ঘর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলা-ভাঙচুরের মহোৎসবে মেতে উঠেছে ক্ষমতাসীনরা।
শুধু রোববারই অন্ততপক্ষে ২০টি স্থানে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী ও তাদের সমর্থকদের ওপর হামলা ও ভাঙচুরের ঘটনা ঘটেছে। এছাড়া একই সঙ্গে চলছে ক্ষমতাসীনদের আচরণবিধি লঙ্ঘনের হিড়িক।
নির্বিকার ও অসহায় নির্বাচন কমিশন (ইসি) পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে না পেরে নিজেদের সুর পাল্টিয়ে সরকার ও সরকারদলীয় ব্যক্তিদের নির্বাচনী আচরণবিধি সঠিকভাবে পালনের জন্য সরকার প্রধানের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে।
নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে নিজ কক্ষে রোববার সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে নির্বাচন কমিশনার মোহাম্মদ শাহ নেওয়াজ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হস্তক্ষেপ কামনা করেন। সরকারদলীয়রা আইনশৃঙ্খলা ও আচরণবিধি লঙ্খন করছেন এমন অভিযোগের মুখে নির্বাচন কমিশনার সরকার প্রধানকে আচরণবিধির বিষয়টি দেখতে বলেন।
তবে বেশ কয়েকটি স্থানে আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের জরিমানা ও শোকজ করা হয়েছে। এর মধ্যে মৌলভীবাজারের কুলাউড়া পৌরসভা নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে তিন মেয়র ও ৯ কাউন্সিলর পদপ্রার্থীকে ৫৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের প্রশাসক এম এনামুল কবির ইমন ও আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী আয়ূব বখত জগলুলের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ করা হয়েছে।
সাতকানিয়া পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ জোবায়েরকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। হরিনাকু পৌরসভায় বিএনপি মেয়র প্রার্থী জিন্নাতুল হকের সমর্থক আলী আজমকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে মারাত্মক জখম করেছে আওয়ামী লীগ প্রার্থী শাহিনুর রহমান রিন্টুর সমর্থকেরা।
রাঙামাটি পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর বিরুদ্ধে আচরণ বিধি লঙ্ঘন, প্রচার কাজে বাধা ও নির্বাচনী অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী হাবিবুর রহমান।
ঝিনাইদহের শৈলকুপা পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী মো. খলিলুর রহমানের ইটের ভাটায় হামলা চালানো হয়েছে। টাঙ্গাইলের গোপালপুর পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী খন্দকার জাহাঙ্গীর আলম রুবেলের উপর হামলা করেছে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীর লোকেরা।
রূপগঞ্জে তারাব পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী নাসিরউদ্দিন আহমেদের গণসংযোগে হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন।
নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর পৌরসভায় পাঁচ মেয়র ও ১০ কাউন্সিলর প্রার্থীকে জরিমানা করা হয়েছে। যশোরের চৌগাছায় আওয়ামী লীগের নুরুদ্দিন আল মামুন হিমেল ও বিদ্রোহী প্রার্থী এসএম সাইফুর রহমান বাবুলের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে।
রূপগঞ্জে তারাব পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপির মেয়র প্রার্থী নাসিরউদ্দিন আহমেদের গণসংযোগে হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এতে অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। রোববার সন্ধ্যায় উপজেলার ১নং ওয়ার্ডের তালতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, তারাব পৌরসভার ১নং ও ২নং ওয়ার্ড এলাকায় গণসংযোগ করতে গেলে বিএনপির মেয়র প্রার্থী নাসিরউদ্দিন আহমেদের কর্মী-সমর্থকদের ওপর হামলা চালায় দুর্বৃত্তরা। এ সময় তিনটি গাড়ি ভাংচুর করা হয়। হামলায় সোহেল, আরমান, দেলোয়ার, ইসমাইল হোসেন, রাজিব, ইয়াছিন, মনসুর, আলী আকবর, নূর হোসেনসহ অন্তত ১০ জন আহত হয়েছেন। আহতদের রূপগঞ্জ, নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।
হরিনাকুণ্ডু পৌরসভায় বিএনপি মেয়র প্রার্থী জিন্নাতুল হকের সমর্থক আলী আজমকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে মারাত্মক জখম করেছে আওয়ামী লীগ প্রার্থী শাহিনুর রহমান রিন্টুর সমর্থকেরা। রোববার সন্ধ্যা ৬টার দিকে উপজেলার বৈঠাপাড়া এলাকা থেকে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হরিনাকুণ্ডু স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক ও জেলা বিএনপির সভাপতি মসিউর রহমান জানান, ৮নং ওয়ার্ড বিএনপির সদস্য আলী আজমকে বিনা কারণে আ’লীগ সমার্থকরা কুপিয়েছেন। এভাবেই আ’লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা নির্বাচনে মাঠে প্রভাব বিস্তার করে জয়লাভ করার চেষ্টা করছে। আমি এঘটনার তীব্রনিন্দা জানাচ্ছি। এ ব্যাপারে হরিনাকুণ্ডু থানার ওসি মাহাতাব উদ্দিন জানান, এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কেউ অভিযোগ করেনি। অভিযোগ এলে বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে।
কুষ্টিয়ার মিরপুরে পৌর নির্বাচনের প্রচারণাকালে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরামের দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার রাগীব রউফ চৌধুরীসহ বিএনপি প্রার্থীর নেতাকর্মীদের ওপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। এতে ছয়জন আহত হয়েছেন। আইনজীবী ফোরামের দফতর সম্পাদক ব্যারিস্টার রাগীব রউফ চৌধুরী বলেন, কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই আমাদের ওপর হামলা চালানো হয়। এতে আমাদের কর্মীরা আহত হয়েছে।
গোপালপুরে বিএনপি প্রার্থীর উপর হামলাঃ টাঙ্গাইলের গোপালপুর পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র প্রার্থী খন্দকার জাহাঙ্গীর আলম রুবেলের উপর হামলা করেছে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থীর লোকেরা। আওয়ামী লীগ প্রার্থীর লোকদের ছোঁড়া ইটের আঘাতে রুবেল আহত হন। রোববার সন্ধ্যায় এ ঘটনা ঘটে। এ সময় আরো কয়েকজন আহত হয় বলে দাবি করে বিএনপি। এর আগে তার কর্মী সভায় আওয়ামী লীগের কর্মী-সমর্থকরা হামলা চালিয়ে টেবিল-চেয়ার ভাংচুর করে।
ঝিনাইদহের শৈলকুপা পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী মো. খলিলুর রহমানের ইটের ভাটায় হামলা চালানো হয়েছে। এ সময় আশপাশের বিএনপি সমর্থক হিসেবে পরিচিত কয়েকজনের বাড়িঘর ভাঙচুর করা হয়। আজ রোববার দুপুর ১টার দিকে পৌর এলাকার চতুরা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় পাঁচজন আহত হয়। বিএনপি মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী মো. খলিলুর রহমান এ ঘটনার জন্য আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী কাজী আশরাফুল আজমের সমর্থকদের দায়ী করেছেন।
রাঙামাটি পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীর বিরুদ্ধে আচরণ বিধি লঙ্ঘন, প্রচার কাজে বাধা ও নির্বাচনী অফিস ভাঙচুরের অভিযোগ করেছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী হাবিবুর রহমান।
রোববার বিকেলে নিজ বাসভবনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন তিনি। এ সময় রাঙামাটি পৌর এলাকায় নির্বাচনের সময় সেনা মোতায়েনের দাবিও জানান তিনি। স্বতন্ত্র প্রার্থী হাবিবুর রহমান অভিযোগ করে বলেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আকবর হোসেন চৌধুরীর সমর্থকরা ১৪ ডিসেম্বর থেকে বিভিন্ন সময়ে মাইকিংয়ে বাধা, পোস্টার ছিঁড়ে ফেলা ও নির্বাচনী অফিস ভাঙচুর করে প্রচার কাজে বাধা সৃষ্টি করছে।
মৌলভীবাজারের কুলাউড়া পৌরসভা নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে তিন মেয়র ও ৯ কাউন্সিলর পদপ্রার্থীকে ৫৭ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। আজ রোববার বিকেল ৪টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত ভ্রাম্যমাণ আদালত অভিযান চালিয়ে এসব জরিমানা করেন। এতে নেতৃত্ব দেন উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) আলমগীর হোসেন।
সুনামগঞ্জে বিধি লঙ্ঘনে জেলা প্রশাসক ও আ. লীগ প্রার্থীঃ সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের প্রশাসক এম এনামুল কবির ইমন ও আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র পদপ্রার্থী আয়ূব বখত জগলুলের বিরুদ্ধে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ করা হয়েছে। স্বতন্ত্র মেয়র পদপ্রার্থী দেওয়ান গনিউল সালাদীন রোববার বিকেলে সুনামগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে লিখিতভাবে এ অভিযোগ দেন। আয়ূব বখত জগলুল পৌরসভার বর্তমান মেয়র। অভিযোগে সালাদীন উল্লেখ করেছেন, ‘মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার দিন থেকেই সরকারদলীয় প্রার্থী আচরণবিধি লঙ্ঘন করছেন। তিনি নির্বাচনী কাজে পৌরসভার যানবাহন ব্যবহার, পৌরসভার কর্মচারীদের দিয়ে পোস্টার লাগানোসহ নির্বাচনের কাজ করাচ্ছেন।’ যদিও আয়ূব বখত জগলুল বলেছেন, তাঁর বিরুদ্ধে করা অভিযোগ সত্য নয়। স্বতন্ত্র প্রার্থী গনিউল সালাদীন শান্তির শহরকে অশান্ত করা চেষ্টা করছেন বলে তিনি রিটার্নিং কর্মকর্তার কাছে মৌখিকভাবে অভিযোগ দিয়েছেন।
অপরদিকে গনিউল সালাদীন জেলা পরিষদের প্রশাসকের বিরুদ্ধে অভিযোগে উল্লেখ করেছেন, ‘সরকারের একজন সুবিধাভোগী হিসেবে সুনামগঞ্জ জেলা পরিষদের প্রশাসক এনামুল কবির ইমনও নির্বাচনের আচরণবিধি ভঙ্গ করে সরকারদলীয় প্রার্থীর পক্ষে প্রচারণায় অংশ নিয়েছেন। তিনি শহরে মিছিল করেছেন। এটা আচরণবিধির সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।’ তবে এনামুল কবির ইমন এসব অভিযোগের ব্যাপারে বলেছেন, তিনি আচরণবিধি লঙ্ঘনের কোনো কাজ করেননি। একজন সাধারণ ভোটার হিসেবে যা করার সেটুকুই করেছেন। এসব ব্যাপারে পৌরসভার রিটার্নিং কর্মকর্তা মঞ্জুর মোহাম্মদ শাহরিয়ার বলেন, ‘আগামীকাল সোমবার প্রার্থীদের নিয়ে বৈঠক ডাকা হয়েছে। যাঁদের বিরুদ্ধে অভিযোগ পাওয়া গেছে তাঁদের সতর্ক করে দেওয়া হবে।’
সাতকানিয়া পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী মোহাম্মদ জোবায়েরকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। রোববার বিকেলে আচরণবিধি লঙ্ঘন করে পৌরসভা এলাকার আদালত সড়কে রঙিন ছবি সংবলিত ফেস্টুন টাঙানোর অভিযোগে তাঁকে নোটিশ পাঠানো হয়। রিটার্নিং কর্মকর্তা মোহাম্মদ উল্যাহ বলেন, আচরণবিধি লঙ্ঘনসহ নির্বাচনের অন্যান্য বিষয় দেখাশোনার জন্য একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করছেন। আজ ওই রঙিন ফেস্টুনের খবর পাওয়ামাত্রই নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট অভিযান চালিয়ে সেগুলো নামিয়ে ফেলেন। রঙিন ফেস্টুন টাঙানোর অভিযোগে তাঁকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। তবে মোহাম্মদ জোবায়ের রিটার্নিং কর্মকর্তার দেওয়া কারণ দর্শানোর নোটিশ পাননি দাবি করে বলেন, ‘আমি আইনের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। নির্বাচনী আচরণবিধি যাতে লঙ্ঘন না হয়, সে দিকে কর্মী-সমর্থকদেরও নির্দেশনা দেওয়া আছে।’
নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে কিশোরগঞ্জের হোসেনপুর পৌরসভায় পাঁচ মেয়র ও ১০ কাউন্সিলর প্রার্থীকে জরিমানা করা হয়েছে। রোববার সন্ধ্যা থেকে রাত পৌনে ৯টা পর্যন্ত পৌরসভার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদের জরিমানা করা হয়। তাদের মধ্যে মেয়র প্রার্থীদের পাঁচ হাজার টাকা করে ২০ হাজার টাকা এবং ১০ কাউন্সিলর প্রার্থীকে ২১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তরফদার সোহেল রহমান। জরিমানার দ-প্রাপ্ত মেয়ররা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আব্দুল কাইয়ুম খোকন, বিএনপি মনোনীত প্রার্থী মাহাবুবুর রহমান, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সৈয়দ হোসেন হাছু ও আব্দুল কাদির স্বপন এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী আনোয়ার আলী মৃধা রতন। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও হোসেনপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তরফদার সোহেল রহমান বলেন, পাঁচ মেয়র ও বিভিন্ন ওয়ার্ডের ১০ কাউন্সিলর প্রার্থীকে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে মোট ৪১ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।
কুমিল্লার হোমনা পৌরসভা নির্বাচনে আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে দুই মেয়র প্রার্থী ও ১২ কাউন্সিলর প্রার্থীকে মোট ১৮ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। রোববার বিকেল তিনটার দিকে দুই মেয়র প্রার্থীকে তিন হাজার টাকা করে এবং ১২ কাউন্সিলর প্রার্থীকে এক হাজার করে টাকা জরিমানা করেন আদালত। আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগে এর আগে ৮ ডিসেম্বর তাঁদের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও নির্বাহী বিচারিক হাকিম আহমেদ জামিল এর সত্যতা নিশ্চিত করে গণমাধ্যমকে বলেন, নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার আগে এসব মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থী দেয়ালে পোস্টার সাঁটায়। তফসিল ঘোষণার পর সাঁটানো পোস্টার না সরানোয় এ জরিমানা করা হয়।
আচরণবিধি লঙ্ঘনের দায়ে মানিকগঞ্জ পৌরসভার ৭নং ওয়ার্ডের দুই কাউন্সিলর প্রার্থীকে জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। রোববার বিকেল ৪টার দিকে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. শহিদ উল্লাহ এ জরিমানা করেন। এ বিষয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট মো. শহিদ উল্লাহ জানান, ৭নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর প্রার্থী একরাম হোসেন (ব্ল্যাক বোর্ড) ও ইয়াহিয়া চৌধুরী ইনুকে (ব্রিজ) এক হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়েছে। নির্ধারিত আকারের চেয়ে বড় পোস্টার ও ডিজিটাল ব্যানার ছাপানোর দায়ে তাদের এ জরিমানা করা হয়।
কাপড়ের তৈরি নৌকা পোড়ানোকে কেন্দ্র করে যশোরের চৌগাছায় আওয়ামী লীগের নুরুদ্দিন আল মামুন হিমেল ও বিদ্রোহী প্রার্থী এসএম সাইফুর রহমান বাবুলের সমর্থকদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া ও সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ৫/৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে পুলিশ। রোববার রাত সাড়ে ৭টার দিকে পৌর এলাকার ইছাপুর বটতলা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। চৌগাছা থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ইলিয়াস হোসেন জানান, শনিবার রাতে কে বা কারা কাপড়ের তৈরি একটি নৌকা প্রতীকে আগুন ধরিয়ে দেয়। এতে নৌকা প্রতীকের কিছু অংশ পুড়ে যায়। সেটি পুলিশ উদ্ধার করে আনে। নৌকা পোড়ানো নিয়ে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়। এরপর রোববার সন্ধ্যায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নুরুদ্দিন আল মামুন হিমেল ও বিদ্রোহী প্রার্থী এসএম সাইফুর রহমান বাবুলকে থানায় আমন্ত্রণ জানিয়ে শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বজায় রাখার আহ্বান জানানো হয়েছিল। তারা আশ্বস্তও করেন এ নিয়ে আর কিছু হবে না। দুই প্রার্থী থানা থেকে বের হওয়ার ১০/১৫ মিনিট পর ইছাপুর বটতলা এলাকায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ৫/৭ রাউন্ড ফাঁকা গুলি ছুঁড়ে। বর্তমান সেখানে পরিস্থিতি শান্ত হয়েছে। দুই পক্ষের ধাওয়া -পাল্টা ধাওয়ায় কয়েকজন আহত হয়েছে বলেও শুনেছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 13 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ