সিলেটের সেই ফজলুকে মামলা থেকে অব্যাহতি

প্রকাশিত: 6:20 AM, February 1, 2016

সিলেটের সেই ফজলুকে মামলা থেকে অব্যাহতি

সিলেটে ২২ বছর বিনাদোষে কারাভোগের পর মুক্তি পাওয়া ফজলু মিয়া মামলা থেকেও অব্যাহতি পেয়েছেন। সিলেটের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের বিচারক ফজলু মিয়াকে চলমান মামলা থেকে চূড়ান্তভাবে অব্যাহতি দিয়েছেন। ৫৪ ধারায় আটক হওয়ার পর কোনো আত্মীয়-স্বজনের সন্ধান না পাওয়ায় তিনি দীর্ঘ ২২ বছর সিলেট কারাগারে ছিলেন। পরিবারের নিকট আত্মীয়ের সঙ্গে ডিএনও টেস্টে মিল পাওয়ায় নবনিযুক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেটের বিচারক সাইফুজ্জামান হিরো বৃহস্পতিবার তাকে মামলার দায় হতে পরিবারের জিম্মায় অব্যাহতি দেন। ব্লাস্টের সিলেট বিভাগের প্রধান সমন্বয়ক অ্যাডভোকেট ইরফানুজ্জামান চৌধুরী জানিয়েছেন, জামিনে থাকা ফজলু মিয়াকে সঠিক আত্মীয়ের হাতে তুলে দিতে নিকট আত্মীয়ের ডিএনএ টেস্ট চেয়েছিলেন বিজ্ঞ আদালত। বুধবার ফজলুর নানা হাসমত উল্লাহ, মামা মফিজদ্দিন ও বোন হামিদা বেগমের ডিএনএ টেস্টের রিপোর্ট আদালতে পৌঁছে। বৃহস্পতিবার দুপুরে সিলেটের চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফজলু মিয়াকে অব্যাহতি প্রদান করেন। ময়মনসিংহের জামালপুর জেলার সদরের নারায়ণপুর এলাকার সাউনিয়া বাঁশছড়া গ্রামে ফজলু মিয়ার বাড়ি। ১৯৭৮ সালের দিকে তার বয়স যখন ১০ থেকে ১২ বছর, তিনি বাড়ি থেকে পালিয়ে ঢাকায় চলে যান। সেখানে ফজলুর সঙ্গে দেখা হয় সিলেটের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার ধরাধরপুর গ্রামের সৈয়দ গোলাম মাওলার। তিনিই ফজলুকে সিলেট নিয়ে আসেন। ১৯৭৮ সালের দিকে ফজলু বাড়ি ছেড়ে চলে আসেন। তারপর দীর্ঘদিন ধরে নিখোঁজ ছিলেন। ২০-২১ বছর তার বড় ভাই আবদুস সাত্তার ফজলুর খবর নিতে সিলেট আসেন। তিনি সিলেটের দক্ষিণ সুরমার ধরাধরপুর গ্রামের গোলাম মাওলার বাড়ি যান। সেখানে গিয়ে জানতে পারেন গোলাম মওলা ও তার স্ত্রী মারা যাওয়ার পর ফজলু উন্মাদ হয়ে বাড়ি থেকে চলে গেছেন। ফজলুর স্ত্রীও সেখানে নেই। গোলাম মওলার বাড়ির কেউ ফজলু মিয়ার কোনো খবর জানেন না। এরপর থেকে তাদের ধারণা ছিল, ফজলু মিয়া হয়তো আর বেঁচে নেই। এদিকে, দুবার আদালত নিরপরাধ ফজলুকে মুক্তির আদেশ দিলেও প্রকৃত অভিভাবকের অভাবে মুক্তি দিতে পারেনি কারা কর্তৃপক্ষ। সম্প্রতি ফজলু মিয়াকে তারই সহপাঠি সিলেটের দক্ষিণ সুরমার তেতলি ইউনিয়ন পরিষদের সাবেক ওয়ার্ড মেম্বার কামাল উদ্দিন রাসেল ফজলুর জামিনের ব্যবস্থা করেন। গত ১৪ই অক্টোবর আদালতে হাজিরার ১৯৮তম দিবসে জামিনে মুক্তি পান ফজলু মিয়া। ১৯৯৩ সালের ১১ই জুলাই সিলেট মহানগরীর কোর্ট পয়েন্ট থেকে মানসিক ভারসাম্যহীন অবস্থায় ফজলু মিয়াকে আটক করে পুলিশ। [the_ad id=”249″]

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 21 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ