ছাতক অনার্স ডিগ্রী কলেজ শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মানব বন্ধন : ঘাতকের শাস্তি দাবি

প্রকাশিত: 6:49 PM, January 28, 2016

ছাতক অনার্স ডিগ্রী  কলেজ শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মানব বন্ধন : ঘাতকের শাস্তি দাবি

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
সিলেটে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে কার চাপায় নিহত ছাতক অনার্স ডিগ্রি কলেজের সাবেক অধ্যাপক শেখ মোঃ আতাউর রহমানের মৃত্যুতে চালক ড.আরিফুল ইসলামের শাস্তির দাবিতে এক মানববন্দন কর্মসুচী পালন করেছেন কলেজের শিক্ষক-শিক্ষার্থী ও কর্মচারীবৃন্দ। বুধবার সকালে শহরের ছাতক শহরে ঘন্টা ব্যাপী এ মানব বন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়। পরবর্তীতে অধ্যক্ষ মঈন উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে স্থানীয় তাহির প্লাজা চত্বরে এক প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন, উপাধ্যক্ষ শামছুল ইসলাম তালুকদার, হিসাব বিজ্ঞান বিভাগের বিভাগীয় প্রধান বেলাল আহমদ, বাংলাদেশ বেসরকারি কলেজ অনার্স মাস্টার্স শিক্ষক পরিষদের জেলা সভাপতি অধ্যাপক পংকজ কুমার সরকার লিটন, অধ্যাপক আনোয়ার হোসেন খান, অধ্যাপক ফেরদৌস চৌধুরী, অধ্যাপক রাজিব কুমার দাস, অধ্যাপক উজ্জ্বল কুমার রায়, অধ্যাপক আব্দুল হামিদ, অধ্যাপক রূপা রানী তালুকদার, অধ্যাপক ইসমত আরা, অধ্যাপক মুজিবুর রহমান, অধ্যাপক অমিতাভ সরকার, অধ্যাপক রহিমা আক্তার হিরা, অধ্যাপক ফখর উদ্দিন স্বপন, অধ্যাপক আলমগীর হোসেন, কলেজের প্রধান অফিস সহকারী আব্দুস শহিদ, হিসাব রক্ষক আব্দুর রহিম, শিক্ষার্থী মোঃ ইসলাম উদ্দিন, রিয়াদ চৌধুরী, সাচ্ছা আবেদীন, মোঃ আব্দুল কাদির, ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী আব্দুল আলীম প্রমূখ। প্রতিবাদ সভা শেষে মৌন মিছিল সহকারে ঘাতক চালককে গ্রেফতার ও দৃষ্টান্তমুলক শাস্তির দাবীতে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আরিফুজ্জামানের কাছে এক স্মারকলিপি প্রদান করা হয়। উল্লেখ্য গত শনিবার বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের প্রধান নতুন গাড়ি চালানো শেখার সময় নিয়ন্ত্রন হারিয়ে পথচারিদের চাপা দিলে দু’জন নিহত ও তিনজন আহত হয়। এদিকে বিশ্ববিদ্যলয় প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঘটনার দিন ও রাতে নিহতদের পরিবারকে সমবেদনা জানালেও কোন ক্ষতি পুরনের বিষয়ে আশ্বস্ত করা হয়নি। এ বিষয়ে জানতে চাইলে শাবি উপাচার্য আমিনুল হক জানান, শিক্ষকের গাড়িতে শিক্ষক নিহতের ঘটনা খুবই দুঃখজনক। তবে ব্যক্তিগত ঘটনার দায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন নিবে না এবং ক্ষতিপুরনের বিষয়ে আমরা এখনই কিছু ভাবছিনা। এ দিকে অভিযুক্ত শিক্ষক পলাতক থাকায় ন্যায় বিচার নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। জালাবাদ থানার ওসি আক্তার হোসেন জানান, নিহতের ঘটনায় অভিযুক্ত আরিফুল ইসলামের বিরুদ্বে আইন অনুযায়ী ব্যাবস্থা নেয়া হবে। তাকে বাসায় পাওয়া যায়নি এমনকি তার মোঠোফোনও বন্ধ রয়েছে ও তিনি জানান।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই সংবাদটি 26 বার পঠিত হয়েছে

এ সংক্রান্ত আরও সংবাদ